৪৫তম আন্তর্জাতিক পুস্তক মেলা ২০২২ উদ্বোধন

মঙ্গলবার, মার্চ ১, ২০২২,১০:০১ পূর্বাহ্ণ
0
31

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তীতে ‘বাংলাদেশ’-কে থিম কান্ট্রি করে ৪৫ তম আন্তর্জাতিক কলকাতা বই মেলার উদ্বোধন ঘোষণা করা হয়েছে। কলকাতার সেন্ট্রাল পার্কে পাবলিশার্স এন্ড বুকসেলার্স গিল্ড আয়োজিত ‘৪৫তম আন্তর্জাতিক কলকাতা পুস্তক মেলা ২০২২’-এর উদ্বোধন করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

এবারের বইমেলায় বাংলাদেশের থিম ‘মুজিব চিরন্তন’। এই থিমের উপর ভিত্তি করে আমাদের স্লোগান-‘সৃজনে মননে মানবিক দেশ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের বাংলাদেশ’ (In creativity, wisdom and humanity, Bangladesh Sheikh Mujib’s Bangladesh).

১৯৭১ সালের ৭ই মার্চ ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে প্রদত্ত বঙ্গবন্ধুর ভাষণ ছিল মূলত স্বাধীনতার ডাক, সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের আহ্বান এবং অনুপ্রেরণা। ২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর ইউনেস্কো বঙ্গবন্ধুর এই ভাষণটিকে বিশ্ব প্রামাণ্য দলিল হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে মেমোরি অভ্ দ্য ওয়ার্ল্ড রেজিস্টারে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। মুজিববর্ষে তাই বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের সেই ঐতিহাসিক ভাষণকে কেন্দ্র করেই এবারের বাংলাদেশ প্যাভিলিয়ন নির্মাণ করা। সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এই প্যাভিলিয়নের উদ্বোধন করেন।

সরকারি-বেসরকারি মিলে এবছর বাংলাদেশের ৪১টি প্রতিষ্ঠানের ৪৪টি স্টল রয়েছে। বঙ্গবন্ধুর লেখা ৩টি বই এর আদলে নির্মাণ করা হয়েছে (অসমাপ্ত আত্মজীবনী, কারাগারের রোজনামচা, আমার দেখা নয়াচীন) মেলার তিনটি গেইট।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, আমি বাংলা ও বাংলাদেশের মধ্যে প্রভেদ করতে পারি না। দু’বাংলার সম্পর্কের সীমানা দড়ি দিয়ে বেঁধে দেয়া যায় না। দু’বাংলার সম্পর্ক চিরমধুর। তিনি বলেন, বাংলার সভ্যতা ও সংস্কৃতি মিশে তৈরি হয় বিশ্বসভ্যতা।

বিশেষ অতিথি কে এম খালিদ বলেন, দু’বাংলা হাজার বছরের ঐতিহ্যবাহী এক অভিন্ন বাঙালি সংস্কৃতির ধারক ও বাহক। দু’বাংলার শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতিকে একই সুঁতোয় গাঁথা ও মেলবন্ধনের অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে সাংস্কৃতিক বিনিময়। আর এর অন্যতম উপকরণ হচ্ছে পারস্পরিক বইমেলায় অংশগ্রহণ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্পাদিত তিনটি বই (World Leaders on Bangabandhu & Bangladesh, Father of the Nation Bangabandhu Sheikh Mujibur Rahman, Brith Centenary Volume), জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, জন্মশতবর্ষ স্মারক সংখ্যা) মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতে তুলে দেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

অনুষ্ঠানে সম্মানীয় অতিথি হিসাবে বক্তৃতা করেন পশ্চিমবঙ্গের বিশিষ্ট লেখক সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায় এবং বাংলা একাডেমির সভাপতি ও বাংলাদেশের বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন পাবলিশার্স এন্ড বুকসেলার্স গিল্ডের সভাপতি সুধাংশু শেখর দে। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন পাবলিশার্স এন্ড বুকসেলার্স গিল্ডের সাধারণ সম্পাদক ত্রিদিব কুমার চট্টোপাধ্যায়।

এবারের মেলায় দুদিন (৩ এবং ৪ মার্চ), বাংলাদেশ দিবস হিসেবে উদ্‌যাপিত হবে।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে