৩৩ শতাংশ নারী রাখার সিদ্ধান্ত দলের ওপরই ছেড়ে দিচ্ছে ইসি

বৃহস্পতিবার, জুন ১৮, ২০২০,৮:০৭ পূর্বাহ্ণ
0
3

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

নির্বাচন কমিশন (ইসি) রাজনৈতিক দলের সব পর্যায়ের কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী পদ পূরণে বাধ্যবাধকতা প্রস্তাবিত আইনে আর রাখছে না। 

রাজনৈতিক দল নিবন্ধন আইন-২০২০ প্রণয়নের লক্ষ্যে প্রস্তুতকৃত খসড়া আইনে দেখা যায় এ বিষয়ে বাধ্যবাধকতা নেই। ৩৩ শতাংশ নারী রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া ও তা বাস্তবায়নের ক্ষমতা দলের ওপরই ছেড়ে দিচ্ছে ইসি।

এর আগে এক-এগার সময়কার এটিএম শামসুল হুদার নেতৃত্বাধীন নির্বাচন কমিশন গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) সংশোধন করে দলে ৩৩ শতাংশ নারী পদ পূরণের বিধানটি এনেছিল। আরপিওতে ভিআইএ (VIA) অধ্যায়টি সংযোজন করে প্রচলন করা হয়েছিল নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য বাধ্যতামূলক দল নিবন্ধন প্রক্রিয়া। সেখানে নিবন্ধন পাওয়ার অন্যতম শর্ত ছিল ২০২০ সালের মধ্যে দলের সব পর্যায়ের কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী পদ পূরণ করতে হবে। 

তবে ইসি জানিয়েছে, কোনো দলই সব পর্যায়ের কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী কোটা পূরণ করতে পারেনি। তাই সময়সীমা আর বেঁধে দিতে চায় না সংস্থাটি।

এক্ষেত্রে নতুন খসড়া আইনে বলা হয়েছে, দলগুলো গঠনতন্ত্রে ৩৩ শতাংশ নারী পদ পূরণের সময়সীমা নিজেরাই উল্লেখ করবে এবং প্রতি বছর তথ্য প্রদানের সময় ইসিকে নিজেদের নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে নারীপদ পূরণের অগ্রগতি সম্পর্কে অবহিত করবে।

এই খসড়ার ওপর রাজনৈতিক দল ও নাগরিকদের মতামতের ভিত্তিতে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এক্ষেত্রে আগামী ৭ জুলাইয়ের মধ্যে মতামত চেয়েছে নির্বাচন কমিশন। মতামত পাঠানো যাবে- secretary@ecs.gov.bd মেইলে।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে