সিংড়ায় জিলাপি ব্যবসায়ে স্বাবলম্বী নজরুল

বৃহস্পতিবার, মে ৬, ২০২১,১:০৮ অপরাহ্ণ
0
19

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

সৌরভ সোহরাব,সিংড়া(নাটোর) প্রতিনিধি : নাটোরের সিংড়ায় সুস্বাদু, মচমচে জিলাপি তৈরী করে খুচরা ও পাইকারী ব্যবসায় স্বাবলম্বী হয়েছেন নজরুল নামের এক জিলাপি কারিগর।

এই জিলাপি কারগিরের বাড়ি উপজেলার ডাহিয়া ইউনিয়নের আয়েশ গ্রামে। সেই ভোর বেলা থেকেই আটা, পানি, চিনি গুলিয়ে চুলায় বসেন নজরুল। জিলাপীর পাশা পাশি তৈরী করেন নেমটি, মদন কটকটি, চানাচুর, বন্দিয়াসহ নানা রকম মুখরোচক খাবার। তার এই কাজে সহযোগিতা করেন তার স্ত্রী ও পরিবারের অন্য সদস্যরা।

স্থানীয় বিয়াশ, বারুহাস, বড়গ্রাাম হাটে নিজেই খুচরা বিক্রয় করেন। তবে বাড়িতে মচমচে সুস্বাদু জিলাপি পাইকারী নিতে আসেন অনেক ক্ষুদে ব্যবসায়ীরা । প্রায় ৩০ বছর ধরে এই ব্যবসায়ের সাথে জড়িত নজরুল। সততা, নিষ্ঠা আর কঠোর পরিশ্রমে জিলাপি কারিগর নজরুল আজ স্বাবলম্বী। মাটির টিনশেড বাড়ি থেকে করেছেন ছাদ ঢালাই পাকা বাড়ি। চার মেয়ের মধ্যে তিন মেয়েকেই বিবাহ দিযেছেন। মাঠে চার বিঘা কিনেছেন ধানী জমি। বাড়িতে আছে একটি দুধাল গাভী সহ চারটি গরু। জিলাপি ব্যবসা করেই সংসারের অভাব ঘুচিয়েছেন নজরুল।

সম্প্রতি নজরুলের বাড়িতে গিয়ে কথা হলো তার সাথে। নজরুল শুনালো তার পিছন ফেরার গল্প। নজরুল বলেন, আজ থেকে ৩০ বছর আগের কথা। সবে মাত্র বিবাহ করেছি। পরের বাড়িতে কাজ করে যা পাই তা দিয়ে কোন রকম দিন কাটে। সংসারের অভাব যায় না। এভাবে কিছু দিন কেটে যাওয়া পর একদিন পাশের সোনাপাতিল গ্রামের জালসায় গিয়ে এক জিলাপি ব্যবসায়ীর সাথে পরিচয় হয়। সেখান থেকেইে জিলাপি তৈরী করা শিখি। এর পর বাড়িতে এসে শুরু করি জিলাপি তৈরী। এভাবেই আমার ব্যবসা ও জিলাপির সুনাম ছড়িয়ে পড়ে। আল্লাহর রহমতে আমি এখন অনেক অনেক সুখি।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে