শেখ হাসিনা ইয়্যুথ ভলান্টিয়ার অ্যাওয়ার্ড রেজিস্ট্রেশনের সময় বাড়লো

বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৩১, ২০২০,১০:২৭ অপরাহ্ণ
0
11

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

‘শেখ হাসিনা ইয়্যুথ ভলান্টিয়ার অ্যাওয়ার্ড-২০২০’ রেজিস্ট্রেশন-এর সময় বাড়লো আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। প্রাথমিকভাবে রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম  চলতি বছরের ১ নভেম্বর থেকে ৩১ ডিসেম্বর  তারিখ পর্যন্ত স্থায়ী হওয়ার কথা থাকলেও তরুণ স্বেচ্ছাসেবীদের সর্বোচ্চ অংশগ্রহণ নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে প্রতিযোগিতার আয়োজক কমিটি এই রেজিস্ট্রেশনের শেষ সময় ৩১ ডিসেম্বর থেকে বাড়িয়ে  আগামী বছরের ১৫ ফেব্রুয়ারি নির্ধারন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। এছাড়া  এখন থেকে আবেদনপত্র  অনলাইনে জমাদানের পাশাপাশি জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে অবস্হিত যুব উন্নয়ন কার্যালয়ে  জমা দেওয়া যাবে।

        গতকাল যুব ও ক্রীড়া মন্তণালয়ের সম্মেলনকক্ষে এ সংক্রান্ত একটি মিডিয়া ব্রিফিং এ সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন  যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ আখতার হোসেন। সম্মেলনে অনলাইনে সংযুক্ত হন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল ।

          করোনাকালীন সংকটময় মুহূর্তে জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে বাংলাদেশ এবং বৈশ্বিক যুবাদের অনন্য মানবিক অবদানের স্বীকৃতি দিতে ‘ঢাকা ওআইসি ইয়ুথ ক্যাপিটাল ২০২০’-এর অধীনে প্রথমবারের মতো প্রধানমন্ত্রীর নামে ‘শেখ হাসিনা ইয়ুথ ভলান্টিয়ার অ্যাওয়ার্ড ২০২০’ চালু হচ্ছে, যার মাধ্যমে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় যুবকদের একক ও দলীয়ভাবে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার, সনদ ও সম্মাননা প্রদান করবে।

          যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল তাঁর বক্তব্যে বলেন, আমরা সবাই দেখেছি করোনা মহামারীর সময়ে তরুণরা কিভাবে স্বেচ্ছাসেবী কার্যক্রমে সম্পৃক্ত ছিলো। তারা আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করেছে, চিকিৎসা সহায়তা প্রদান করেছে, লাশ দাফন করেছে। এরকম নানাবিধ স্বেচ্ছাসেবী সহায়তা প্রদান করেছে। তরুণরা প্রায়ই বলে থাকে যে তারা তাদের কাজের স্বীকৃতি পায়না। তাই সরকারের পক্ষ থেকে সরাসরি আমরা এই উদ্যোগটি গ্রহণ করেছি এবং এটি শুধু আমরা দেশেই সীমাবদ্ধ রাখছিনা, জাতীয় এবং আন্তর্জাতিকভাবে আমরা এই স্বীকৃতিটি তরুণদেরকে দিতে চাই।

          সাংবাদিক এবং মিডিয়াকর্মীদেরকেও এই অ্যাওয়ার্ডটি দেয়া হবে জানিয়ে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী সাংবাদিকদের প্রতিযোগিতায় রেজিস্ট্রেশনের জন্য আহ্বান জানান।

          যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব বলেন, চলমান করোনা সংকট মোকাবিলায় সরকারের পাশাপাশি বাংলাদেশ ও বিশ্বের যুবারা আর্তমানবতার সেবায় যে অবদান রেখেছেন তার স্বীকৃতি দিতে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়-এর উদ্যোগে এবং সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়-এর সহযোগিতায়  প্রতিযোগিতা আয়োজনের পরিকল্পনা করা হয়েছে, যার মাধ্যমে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় তরুণদের ১০টি ভিন্ন ভিন্ন ক্যাটাগরিতে একক ও দলীয়ভাবে মোট ১০০জনকে পুরস্কার ও সম্মাননা প্রদান করবে।

          মিডিয়া ব্রিফিং ও লোগো উন্মোচন অনুষ্ঠানে ১০টি ক্যাটাগরিতে অ্যাওয়ার্ড প্রদানের ঘোষণা দেয়া হয়। ক্যাটাগরিসমূহ হলো- মোস্ট ইন্সপায়ারিং ভলান্টিয়ার স্টোরি;  মোস্ট ইমপ্যাক্টফুল ইনিশিয়েটিভ; বেস্ট ইনোভেটিভ আইডিয়া; কর্পোরেট সাপোর্ট ইন ভলান্টারি ইয়ুথ অ্যাক্টিভিটিস;  মোস্ট ইমপ্যাক্টফুল মিডিয়া পার্সোনেল;  কমিউনিটি লিডারশিপ অ্যান্ড সার্ভিস;  ইনভায়রনমেন্টাল রেসপন্স;  অ্যাকট অব ব্রেভারি;  সার্ভিস অ্যাক্সেলেন্স;  আউটস্ট্যান্ডিং ভলান্টিয়ার অর্গানাইজেশন।

          রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া এবং যাবতীয় তথ্যের জন্য http://youthpowerhouse.org/shyva ভিজিট করতে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে