শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সকল বৃত্তি কার্যক্রম ডিজিটালাইজড করা হয়েছে: শিক্ষামন্ত্রী

বুধবার, অক্টোবর ৭, ২০২০,১০:৩৬ পূর্বাহ্ণ
0
7

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, তথ্য প্রযুক্তির সুফল সকলের কাছে পৌঁছে দিতে সরকার সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। সরকারের ‘রূপকল্প-২০২১’ এর আলোকে ডিজিটাল বাংলাদেশের উদ্দেশ্যে হলো অল্প সময়ে, কম পরিশ্রমে এবং স্বল্প ব্যয়ে মানুষের দোরগোড়ায়  সেবা পৌঁছানোর নিশ্চয়তা প্রদান করা। এ লক্ষ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন সকল বৃত্তি কার্যক্রম ডিজিটালাইজড করা হয়েছে।

মন্ত্রী গতকাল মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা  অধিদপ্তরের রাজস্ব খাতভুক্ত মেধা ও সাধারণ বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের মাঝে ২য় পর্যায়ে G2P  পদ্ধতিতে বৃত্তির অর্থ বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধনের সময় এক  অনলাইন সভায়  প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

ডা. দীপু মনি বলেন, পূর্বের গতানুগতিক ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে শিক্ষার্থীদের বৃত্তির অর্থ প্রাপ্তিতে বিভিন্ন ধরণের ভোগান্তির শিকার হতে হতো। সরকার G2P  পদ্ধতিতে EFT এর মাধ্যমে বৃত্তির অর্থ সরাসরি শিক্ষার্থীর ব্যাংক হিসাবে পৌঁছে দেয়ার মাধ্যমে ভোগান্তির নিরসন করছে। এর ফলে শিক্ষার্থীরা দ্রুততম সময়ের মধ্যে তাদের বরাদ্দকৃত বৃত্তির টাকা পাবে এবং সরকারের অর্থ ও সময় সাশ্রয় হবে। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর হতে সরকারের রাজস্ব খাতভুক্ত পিইসি, জেএসসি, এসএসসি, এইচএসসি এবং স্নাতক পরীক্ষা-সহ মোট চারটি  ক্যাটেগরির শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান করা হয়।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক পরিকল্পনা ও উন্নয়ন মোঃ নুরুল ইসলাম চৌধুরীর সঞ্চালনায় এবং মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর ডঃ সৈয়দ মোঃ গোলাম ফারুকের সভাপতিত্বে অনলাইন সভায় আরো যুক্ত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী।

উল্লেখ্য গতকাল বাংলাদেশ ব্যাংক হতে ২ লাখ ৭৭ হাজার ০৮৫টি EFT এর মাধ্যমে ৫১ কোটি ৩৬ লাখ ২৮ হাজার ৪৫০ টাকা G2P  পদ্ধতিতে শিক্ষার্থীদের ব্যাংক হিসাবে সরাসরি প্রেরণ করা হয়।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে