শহীদ ‘মহিম উদ্দীন’ ফাউন্ডেশন এর উদ্যোগে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করলেন চসিক মেয়র

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ১৬, ২০২০,৫:৪৭ পূর্বাহ্ণ
0
35

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

নতুন বইয়ের ঘ্রাণে মুগ্ধ বাগমনিরাম ওয়ার্ডের ১ হাজার শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে রয়েল গার্ডেন কমিউনিটি সেন্টারে শহীদ ‘মহিম উদ্দীন’ ফাউন্ডেশন এর উদ্যোগে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ.জ.ম নাছির উদ্দিন। এ শিক্ষা উপকরণ উৎসব উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ১৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ গিয়াস উদ্দিন ।

রাজনীতিক নেতা এস এম সিরাজের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ শ্রমিকলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব সফর আলী, মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে সিন্ডিকেট সদস্য ও বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, ইকুইটি প্রোপার্টিজ ম্যানেজমেন্ট লিঃ এর পরিচালক মাহফুজুল হক,ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামীম রোখন,চকবাজার থানা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক কামরুল হাসান,চট্টগ্রাম ডেকোরের্টাস মালিক সমিতির সভাপতি সাজেদুল আলম লিটন.বাগমনিরাম প্রা.বিদ্যা.পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবু তাহের, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা শওকত উল্লাহ সৈয়দ,বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সভাপতি রফিকুল ইসলাম,ম্যাক্স হাসপাতালের পরিচালক ডা: লিয়াকত আলী খান,সাবেক মহানগর ছাত্রনেতা মোঃ কফিল উদ্দিন, যুব নেতা ইকবাল হোসেন জনি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা শেখ মোঃ ইসহাক, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর মনোয়ারা মনি, আবুল বশর, নাট্যজন সাইফুল আলম,নাছিরউদ্দিন, দিদারুল আলম,সেকান্দর কবির, আব্দুল জলিলসহ স্থানীয় গণ্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গ,রাজনৈতিক,অভিভাবক ও শিক্ষার্থী।

সিটি মেয়র বলেন, শিক্ষা মানুষের জম্মগত অধিকার অথ্যাৎ মৌলিক অধিকার। এ দেশে বসবাসরত সকল শ্রেণীর মানুষের শিক্ষা লাভের সমান অধিকার রয়েছে। তাই বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকলকে শিক্ষিত করে তুলতে এবং শিক্ষা বিস্তারে নানামুখী কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছেন। দেশকে একটি শিক্ষিত জনগোষ্ঠী তথা শিক্ষিত সমাজ উপহার দেয়ার লক্ষ্যে বছরের প্রথম দিনে বই উৎসব করে কোমলমতি শিশুদের হাতে নতুন বই তুলে দিচ্ছেন সরকার। যা এ সরকারের একটি যুগান্তকারী কর্মসূচি।

সিটি মেয়র আরো বলেন অনেক পরিবার আছেন যারা আর্থিক অসচ্চলতার কারণে তাদের সন্তানদের পড়ালেখা শেখানোর পথ থেকে দূরে রাখেন। কিন্তু তারা এটা বিবেচনা করে না যে তাদের সন্তানরা যদি শিক্ষিত হয় তাহলে তাদের আর্থিক অবস্থার পরিবর্তন সাধন হবে। এর সাথে নিজেদের ভাগ্যের উন্নয়ন তরান্বিত হবে। জনহিতকর কাজে জনপ্রতিনিধিদের কথা উল্লেখ করে সিটি মেয়র বলেন, সমাজে জনপ্রতিনিধিরা মানুষের বিপদে আপদে ছুটে আসেন এবং তাদের সাধ্যমত সমস্যার সমাধান করেন। নতুবা সমস্যা সমাধানের জন্য অন্যদের কাছেও দারস্থ হন। এটা হচ্ছে জনপ্রতিনিধিদের দৈনন্দিন কাজ।

তিনি বলেন আপনারা আপনাদের সন্তানদের জ্ঞান অর্জনে অনুপ্রানিত, উজ্জীবিত ও উৎসাহিত করবেন, যাতে তারা সঠিক পথে পরিচালিত হয়ে সৎ, চরিত্রবান ও আর্দশবান ভাল মানুষ হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে পারে। নৈতিকতা শিক্ষা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দিক। এই নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে মূল্যবোধ সম্পন্ন ব্যক্তি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হলে পরিবারের প্রত্যাশা পূরণে সক্ষম হয়।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে