রায়পুরায় শিক্ষকের বেতের আঘাতে আহত ১ শিক্ষার্থী

শনিবার, আগস্ট ৩, ২০১৯,১০:২৩ পূর্বাহ্ণ
0
35

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

নরসিংদীর রায়পুরায় মাহমুদাবাদ রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু উচ্চ বিদ্যালয়ের ধর্মীয় শিক্ষক আমিনুল এহসান ইকবালের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে নবম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে বেত দিয়ে পিটিয়ে আহত করার। মিজানুর রহমান খান আহত ছাত্রের নাম। সে মুছাপুর গ্রামের মো. আব্দুল জলিলের ছেলে। বেতের আঘাতে রক্তক্ষরণ হয়েছে তার মাথা কেটে গিয়ে।

আহত শিক্ষার্থীর এক নিকট আত্মীয় জানান, শনিবার সকাল সাড়ে ১১টায় শ্রেণিকক্ষের ভেতরে ওই শিক্ষক দুষ্টুমির অভিযোগে অমানবিকভাবে বেত দিয়ে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেন তার মাথা । পরে ওই শিক্ষার্থী তার বাবা-মাকে বিষয়টি জানালে অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয় প্রধান শিক্ষকের কাছে।

অভিযোগ রয়েছে এর আগেও তিনি স্কুলের আরেক ছাত্র আল মিরাজকে পিটিয়ে আহত করেন বলে । পরে স্কুল পরিচালনা কমিটি ওই শিক্ষার্থীর অভিভাবকের সাথে সমাধান করেন আলোচনায় বসে । পরপর এরকম ঘটনায় পরও ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ না করায়। শিক্ষার্থীদের সাথে তিনি আচরণ করছেন আরো বেপরোয়া । এতে করে স্কুলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে ভীতি এবং অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের নিয়ে আছেন চিন্তায়।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত শিক্ষক আমিনুল এহসানের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, দুই জন ছাত্রের মধ্যে চলা ঝগড়া থামাতে গিয়ে তার হাতে থাকা বেতের আঘাতে ওই ছাত্রের মাথার সামান্য অংশ কেটে যায়।  তিনি কিছু করেননি অন্যায়ভাবে।

মাহমুদাবাদ রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. ফারুক মিয়া জানান, শ্রেণিকক্ষে দুষ্টামি করায় সময় ধর্মীয় শিক্ষক আমিনুলের বেতের খুঁচায় কেটে যায় মাথার সামান্য অংশ । আহত ছাত্রের অভিভাবকের সাথে কথা হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে।

এ ব্যাপারে মাহমুদাবাদ রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি তাজুল ইসলাম ভূঁইয়া জানান, আহত ছাত্রের অভিভাবক ও শিক্ষকদের উপস্থিতে বিষয়টি দেওয়া হয়েছে মিমাংসা করে।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে