যেকোনো মূল্যে চাঁদপুরকে নদী ভাঙন থেকে রক্ষা করা হবে

সোমবার, আগস্ট ৫, ২০১৯,৬:৩৯ পূর্বাহ্ণ
0
22

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম বলেছেন, চাঁদপুরকে নদীভাঙন থেকে রক্ষার জন্য বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে ১১ শ কোটি টাকা। এই জন্য সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়েছে এরই মধ্যে । সবকিছু ঠিক থাকলে চলতি বছরই শুরু হবে নদীভাঙন রক্ষায় এই কাজ ।তিনি সাংবাদিকদের এমন তথ্য জানান সোমবার বেলা সাড়ে ১০টায় চাঁদপুর শহরের হরিসভা এলাকায় মেঘনার ভাঙন পরিদর্শন শেষে । 

উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম আরো বলেন, যেকোনো মূল্যে রক্ষা করা হবে চাঁদপুর শহরের গুরুত্বপূর্ণ এই এলাকা। এই জন্য জরুরিভিত্তিতে ভাঙনকবলিত স্থানে বালিভর্তি ১০ হাজার জিওটেক্স ব্যাগ ফেলার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া টেকসই বাঁধ নির্মাণে অচিরেই কার্যকরী উদ্যোগ নেওয়া হবে।

এ সময় আওয়ামী লীগের দুর্যোগ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক মোতাহার হোসেন, প্রধান প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান, জেলা প্রশাসক (ভারপ্রাপ্ত) শওকত ওসমান, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু রায়হান, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম দুলাল পাটোয়ারী, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নাজিম দেওয়ান, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জাহিদুল ইসলাম রোমান, জেলা পূজা উদ্‌যাপন কমিটির সভাপতি সুভাষ চন্দ্র রায়সহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 

প্রসঙ্গত, গত শনিবার রাতে চাঁদপুর শহরের পুরানবাজারের হরিসভা এলাকায় মেঘনার ভয়াবহ ভাঙনে বিলীন হয়ে যায় শহর রক্ষা বাঁধের ২০০ মিটার এলাকা । এ সময় ৫০টি বসতবাড়িসহ অন্যান্য স্থাপনা চলে যায় নদীগর্ভে । এদিকে, ভাঙনের পর থেকে সেখানে নদীতীর রক্ষায় ফেলা শুরু হয় বালিভর্তি জিওটেক্স । এরপর থেকে আপাতত বন্ধ রয়েছে ভাঙন ।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে