যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরে আন্তর্জাতিক যুব দিবস উদ্যাপন

বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১৩, ২০২০,২:১০ অপরাহ্ণ
0
3

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

গতকাল আন্তর্জাতিক যুব দিবস ২০২০। এ বছরে দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘বৈশ্বিক কর্মে যুবদের সম্পৃক্ততা’। প্রতিবছরের মতো বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় এ বছরও যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে বাংলাদেশে দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে। দিবসটি উদ্যাপন উপলক্ষে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় ও ইউএনভি বাংলাদেশের যৌথ আয়োজনে আজ মতিঝিলে যুব ভবনে ‘বাংলাদেশে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে তরুণ ও স্বেচ্ছাসেবকদের ভূমিকা’ শীর্ষক এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। উক্ত আলোচনা সভায় যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি মোঃ আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব এবং যুব ও ক্রীড়া সচিব মোঃ আকতার হোসেন।

            প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাঙালি জাতির স্বপ্নদ্রষ্টা সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষে কেউ কর্মহীন থাকবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১ এবং জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়নের অভিষ্ট (এসডিজি গোল) নির্ধারিত সময়ের মধ্যে অর্জনে সরকার বদ্ধপরিকর। এ লক্ষ্যে দেশের যুবসমাজকে আধুনিক, প্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তুলতে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় নিরলস কাজ করছে। যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর হতে এ পর্যন্ত প্রায় ৬২ লাখ যুবককে সময়োপযোগী বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। তন্মধ্যে প্রায় ২৩ লাখ যুবক স্বাবলম্বী হিসেবে গড়ে উঠেছে। প্রতিবছর সাড়ে তিন লাখের অধিক যুবকদের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। দেশের প্রতিটি উপজেলায় যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

            তিনি বলেন, করোনার কারণে দেশ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে যাতে পিছিয়ে না পড়ে, যুবরা যেনো কর্মহীন হয়ে না পড়ে সেজন্য সরকার যুবদের জন্য গ্রামে আত্নকর্মসংস্থান নামক বিশেষ প্রকল্প গ্রহণ করেছে। এ প্রকল্পের আওতায় প্রায় সাত লাখ যুবক প্রশিক্ষণ ও যুব ঋণ সুবিধা পাবে। তিনি বলেন, যুবদের উন্নয়ন স্রোতধারায় সম্পৃক্ত করতে যুবদের পণ্য বাজারজাতকরণের চ্যালেঞ্জ সফল ভাবে মোকাবিলার জন্য যুব ব্যান্ড প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। যার মাধ্যমে গ্রামীণ ও প্রান্তিক যুব জনগোষ্ঠীকে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী করা সম্ভব হবে। ইতোমধ্যে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে অনলাইন মার্কেটিং চ্যানেল তৈরির লক্ষ্যে পাইকারি সেল ডটকম প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।

            প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, ২০২০ সালটি বাংলাদেশের তরুণদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উদ্যাপন করার পাশাপাশি বছরব্যাপী সারা বিশ্বের তরুণদের অংশগ্রহণে ঢাকা ওআইসি ইয়ুথ ক্যাপিটাল ২০২০ এর নানা বর্ণাঢ্য কর্মসূচি উদ্যাপন করা হবে।

            যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরে মহাপরিচালক আখতারুজ্জামান কবীরের সঞ্চালনায়। প্যানেল আলোচক হিসেবে অংশগ্রহণ করেন ব্রাক এর নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ; অ্যাকশন এইড বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারাহ কবির; ইউএনভি বাংলাদেশ কান্ট্রি কো-অর্ডিনেটর মোঃ আকতার উদ্দিন; ইয়ুথ এক্টিভিস্ট এটুআই প্রকল্প হেড সোশ্যাল ইনোভেশন মোঃ মানিক মাহমুদ ও ফাহমিদা ফাইজা।

            দিবসটি উদ্যাপন উপলক্ষে আজ যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর কর্তৃক পথচারি, রিকসা ও ভ্যানচালকদের মাঝে বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে