যথাযোগ্য মর্যাদায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের জাতীয় শোক দিবস পালন

রবিবার, আগস্ট ১৬, ২০২০,৩:৩৫ পূর্বাহ্ণ
0
2

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে টিসিবি অডিটরিয়ামে দোয়া ও আলোচনা অনুষ্ঠানসহ গতকাল দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়। দিনের উল্লেখযোগ্য কর্মসূচির মধ্যে ছিল জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ, জাতির পিতার জীবন ও কর্ম-ভিত্তিক চিত্রকর্ম/আলোকচিত্র প্রদর্শনী, পবিত্র ধর্মগ্রন্থ থেকে পাঠ, বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য জীবনভিত্তিক প্রামাণ্য চিত্র ‘চিরঞ্জীব বঙ্গবন্ধু’ প্রদর্শন ও আলোচনা সভা। এছাড়াও জাতির পিতাকে নিবেদিত করে কবিতা আবৃতি পরিবেশন করা হয়। জাতীয় কর্মসূচির আলোকে বিদ্যমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে সকল অনুষ্ঠানের যাবতীয় কার্যক্রম পরিচালিত হয়েছে।

আলোচনা অনুষ্ঠানে  প্রধান অতিথি বাণিজ্য মন্ত্রী  টিপু মুনশির একটি ভিডিও বার্তা সম্প্রচার করা হয়।

বাণিজ্যমন্ত্রী ভিডিও বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন স্বাধীনতার স্বপ্ন দ্রষ্টা এবং বাংলাদেশের স্থপতি। তিনি কেবল স্বাধীনতার স্বপ্নকে অন্তরে ধারণই করেননি, সমগ্র জাতিকে স্বাধীনতা সংগ্রামে উদ্বুদ্ধ ও সংগঠিত করে স্বাধীনতা ছিনিয়ে এনেছেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতি বাণিজ্য সচিব ড. মোঃ জাফর উদ্দীন বলেন, বঙ্গবন্ধুর চিন্তা ছিল সুদূর প্রসারী। তিনি সত্তর দশকে দেশের অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য যে সকল চিন্তা ও অভিপ্রায় ব্যক্ত করেছেন তা আজ বিশ্বব্যাপী দারিদ্র ও উন্নয়নের কৌশল হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে।

আলোচনা শেষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের শাহাদতবরণকারী সকল সদস্যের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠান শেষে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং অধীনস্থ সংস্থার পক্ষ থেকে এক র‌্যালির মাধ্যমে ধানমন্ডির ৩২ নম্বর সড়কে বঙ্গবন্ধুর বাসবভনে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে