মুসলিম ইন্সটিটিউট ময়মনসিংহ কর্তৃক বিভাগীয় কমিশনার মোঃ কামরুল হাসানকে বিদায় সংবর্ধনা

মঙ্গলবার, জুন ১, ২০২১,১২:০৭ অপরাহ্ণ
0
22

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

নিজস্ব সংবাদদাতা : মুসলিম ইন্সটিটিউট ময়মনসিংহ কর্তৃক মে’২১ মাসের শেষ সপ্তাহে ময়মনসিংহ বিভাগের বিদায়ী বিভাগীয় কমিশনার কৃষিবিদ মোঃ কামরুল হাসান এনডিসি-কে বিদায় সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। মুসলিম ইন্সটিটিউট ময়মনসিংহের নিজস্ব ভবনে সাধারণ সম্পাদক-এর দপ্তরে এক অনাড়ম্বর পরিবেশে এই বিদায় সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়। উল্লেখ্য যে, বিভাগীয় কমিশনার পদাধিকার বলে মুসলিম ইন্সটিটিউট ময়মনসিংহ-এর সভাপতিও।

কার্যনির্বাহী কমিটির সভা শেষে অনুষ্ঠিত উক্ত বিদায়  সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রফেসর ড. গাাজী মোঃ হাসান কামাল, চেয়ারম্যান, ময়মনসিংহ মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বোর্ড এবং সাধারণ সম্পাদক, মুসলিম ইন্সটিটিউট ময়মনসিংহ।উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মোঃ এহতেশামুল আলম,সভাপতি, মহানগর আওয়ামী লীগ, ময়মনসিংহ ও সহ-সভাপতি, মুসলিম ইন্সটিটিউট ময়মনসিংহ।

মুসলিম ইন্সটিটিউট ময়মনসিংহের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যবৃন্দ ছাড়াও উক্ত বিদায় সংবর্ধনায় উপস্থিত ছিলেন কৃষিবিদ শেখ মোঃ মুজাহিদ নোমানী, বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদকপ্রাপ্ত উপপরিচালক ও জেলা বীজ প্রত্যয়ন অফিসার(অবঃপ্রাপ্ত),(কৃষি মন্ত্রণালয়),কৃষি সাংবাদিক, বিশিষ্ট কবি ও প্রাবন্ধিক ও এবং সিনিয়র সহ-সভাপতি, বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদকপ্রাপ্ত পরিষদ, বাংলাদেশ।

তাছাড়াও উক্ত অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন কাজী আজাদ জাহান শামীম, যুগ্ম সম্পাদক, ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগ ও সভাপতি, স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তি ব্যবস্থাপনা কমিটি, মোঃ ইয়াহিয়া খোকন, সভাপতি, নির্মাণ ও সংস্কার কমিটি, কর্নেল ড. অধ্যাপক মোঃ শাহাবুদ্দিন, সাবেক অধ্যক্ষ, মুসলিম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ এবং সভাপতি, ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী কমিটি।
পুরো অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ড. মাহবুব, সহযোগী অধ্যাপক, পদার্থ বিজ্ঞান, আনন্দ মোহন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ এবং মান্নান ফরিদি,সাবেক অধ্যক্ষ, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ও প্রচার-প্রকাশনা সম্পাদক, মুসলিম ইন্সটিটিউট ময়মনসিংহ এবং প্রফেসর মোঃ কামরুজ্জামান, বাংলা বিভাগ, আনন্দ মোহন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ।
প্রধান অতিথির ভাষণে মোঃ এহতেশামুল আলম, সভাপতি, মহানগর আওয়ামী লীগ, ময়মনসিংহ বিদায়ী বিভাগীয় কমিশনারকে উদ্দেশ্য করে বলেন,  মাত্র এক বছরের  কর্মকালীন সময়ে ময়মনসিংহ বিভাগের রাজনীতি, সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডসহ প্রশাসনিক দক্ষতায় নবগঠিত ময়মনসিংহ বিভাগের যথাযথ উন্নয়নে আপনার অক্লান্ত পরিশ্রম ও অবদানের কথা ময়মনসিংহবাসী অত্যন্ত শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্বরণ করবে চিরদিন।
বদলীকৃত নূতন কর্মস্থল চট্টগ্রাম বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার হিসেবে চট্টগ্রামে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি ময়মনসিংহবাসীর কথা মনে রেখে মুসলিম ইন্সটিটিউট ময়মনসিংহের আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত সুরম্য ভবন নির্মাণের প্রকল্পটি বাস্তবায়নে যথাসাধ্য চেষ্টা ও সহযোগিতা প্রদানের অনুরোধ জানালে বিদায়ী অতিথি কৃষিবিদ মোঃ কামরুল হাসান, এনডিসি, বিভাগীয় কমিশনার ময়মনসিংহ তাঁর বিদায়ী বক্তব্যে বলেন, তিনি জামালপুরের সন্তান হলেও তাঁর স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের জীবন ময়মনসিংহের এই চিরচেনা শহরের প্রতিটি অলিতে-গলিতে, মুসলিম ইন্সটিটিউটের লাইব্রেরীতে নিয়মিত আসা-যাওয়া ও পড়াশোনার অনেক মধুর স্মৃতি তাঁর মনে গভীরভাবে গেঁথে আছে যা কখনই ভোলার নয়।
তাই নবগঠিত ময়মনসিংহ বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার হিসেবে অল্প সময়ের জন্য হলেও   ময়মনসিংহবাসীর সেবা করতে পারায় আমি নিজেকে অত্যন্ত ভাগ্যবান মনে করছি যা আমার জীবনের জন্য চরম ও পরম স্বরণীয় ঘটনা।
বিদায়ী বিভাগীয় কমিশনার আরও বলেন, ময়মনসিংহ বিভাগের সার্বিক দ্রুত উন্নয়নের জন্য অন্যান্য বিভাগীয় উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ যথা রাজশাহীর জন্য আরডিএ, খুলনার জন্য কেডিএ, চট্টগ্রামের জন্য সিডিএ-এর ন্যায় ময়মনসিংহ বিভাগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ অর্থাৎ  এমডিএ গঠন করা একান্ত প্রয়োজন।এ বিষয়ে তিনি সম্ভাব্য সকল প্রকার সাহায্য সহযোগিতা করে যাবেন বলে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যাক্ত করেন।

সবশেষে কৃষিবিদ মোঃ কামরুল হাসান এনডিসি, বিভাগীয় কমিশনার-কে মুসলিম ইন্সটিটিউট ময়মনসিংহের আজীবন সদস্য পদ প্রদান করা হয় এবং চিত্র নায়ক ওয়াসিমসহ মুসলিম ইন্সটিটিউট ময়মনসিংহের সম্মানিত সদস্যদের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করা হয় এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানানোর প্রকাশের পাশাপাশি একটি শোকবার্তা অনুমোদন করা হয়।

পরিশেষে বৈকালিক আপ্যায়ন ও মুসলিম ইন্সটিটিউটের চত্বরে একটি গ্রুপ ছবি তোলার মধ্যে দিয়ে বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে