ময়মনসিংহ সাহিত্য সংসদের বীক্ষণ আসরের বাৎসরিক কবিতার কর্মশালা ২০২১ অনুষ্ঠিত

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ৬, ২০২২,৯:৫৮ পূর্বাহ্ণ
0
26

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

নিজস্ব সংবাদদাতা : বিদায়ী বছরের শেষ দিনটি শুক্রবার থাকায় তা হয়ে উঠে বীক্ষণ আসরের অক্টোবর – ডিসেম্বর, ২০২১ প্রান্তিকেরও শেষদিন এবং নিয়ম অনুযায়ী বছরের শেষ শুক্রবারটি নির্বাচন করা হয়ে থাকে বীক্ষণ আসরের বাৎসরিক কবিতার কর্মশালা আয়োজনের জন্য ।
তারই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ- ভারতের সীমান্তবর্তী এলাকার মেঘালয় পাহাড়ের পাদদেশে ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটের গোবরাখালী গারোপাহাড় পর্যটন কেন্দ্রে ময়মনসিংহ সাহিত্য সংসদের বীক্ষণের ১৯৭৩ তম আসরে অনুষ্ঠিত হলো দিনব্যাপী বাৎসরিক আয়োজন ” কবিতার কর্মশালা ২০২১”।

আসরে ছিল ভ্রমণ,কথা,স্বরচিত পাঠ ও আবৃত্তির ছড়াছড়ি। প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল “কবিতার সাথে কবিতার পাশে দিনমান কবিতা যাপনে” আনন্দঘন প্রাণবন্ত মুহূর্তের কিছু মধুময় সময় পরিণত হয়ে উঠে ময়মনসিংহ জেলার কবি,সাহিত্যিক, বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ও লেখকদের মিলনমেলায়।
কবিতার কর্মশালায় ময়মনসিংহ জেলার বিভিন্ন উপজেলা এমনকি পার্শ্ববর্তী জেলা সদর হতেও কবি, সাহিত্যিক,লেখক, প্রাবন্ধিক, কথাশিল্পী, অভিনেতা- অভিনেত্রী, আবৃত্তিকার, সংগঠক এবং রাজনৈতিক নেতা- কর্মীবৃন্দ স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন।

বাৎসরিক কবিতার কর্মশালা ২০২১ এর বীক্ষণের ১৯৭৩ তম আসরে যোগদান করেন এ্যাডভোকেট বদরুদ্দিন আহমেদ, বীর মুক্তি যোদ্ধা বিমল পাল যিনি গত মহাবিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তী বছরটিকে স্বরণীয় করে রাখেন ময়মনসিংহ জিরো পয়েন্ট থেকে হালুয়াঘাটের উত্তর বাজার পর্যন্ত মোট ৫০ কিঃমি পথ পায়ে হেঁটে সবাইকে তাক লাগিয়ে দেন। আরও যোগদান করেন আওয়ামী লীগ, ময়মনসিংহ জেলা শাখার সাংস্কৃতিক সম্পাদক মোঃ মুস্তাফিজুর বাসার ভাষাণী, বিশিষ্ট সংগঠক, প্রকাশনা জগতের সফল অগ্রদূত ময়মনসিংহের কৃতি কথাশিল্পী, ভাষা সৈনিক মরহুম গোলাম সামদানী কোরায়শীর সুযোগ্য পুত্র সজল কোরায়শী, নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন, ময়মনসিংহ জেলা শাখার নেতা ও সংগঠক কবি আবদুল কাদের চৌধুরী মুন্না, আসপাডা পরিবেশ উন্নয়ন এর নির্বাহী পরিচালক মোঃ আব্দুর রশিদ, বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদকপ্রাপ্ত কৃষি সাংবাদিক, লেখক ও প্রাবন্ধিক এবং বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদকপ্রাপ্ত পরিষদের সিনিয়র সহ-সভাপতি কৃষিবিদ শেখ মোঃ মুজাহিদ নোমানী, মতিন্দ্র মানখিন, আহমেদ শাহাবুদ্দিন,কবি প্রাঙ্গন” হালুয়াঘাটের কবি জালাল উদ্দিন আহমদসহ অনেক তরুণ কবি, কথা ও অভিনয় শিল্পী এবং বীক্ষণের উদীয়মান তরুণ আবৃত্তিকার আমজাদ শ্রাবণসহ আরও অনেক কবি ও সাহিত্যিকবৃন্দ।

তাৎক্ষণিকভাবে লেখা কবিদের কর্তৃক স্বরচিত কবিতা আবৃত্তি করেন যারা তারা হচ্ছেনঃ-
নাজমা মমতাজ, মাহবুব আলম, রাহমান হাবিব, আমজাদ শ্রাবণ, রওশন ঝুনু, কবি জান্নাতুল নাহার নুপুর, কবি জালাল উদ্দীন আহমদ, বারি সুমন, অনন্য রাজ্জাক, পারভীন আক্তার, কবি আসাদসহ প্রমুখ।
বিদায়ী ২০২১ ইংরেজি বছরের শেষ দিনে বেশ আনন্দ হাসি আর পাহাড়ে উঠানামা, লেকের স্বচ্ছ- সুন্দর পানিতে ময়ূরপঙ্খিতে চড়ে বেড়ানোর মজাই আলাদা।
তাছাড়া পুরো অনুষ্ঠান সফল করে তোলার পিছনে যাদের নেতৃত্বে ও সার্বিক সহযোগিতায় এবং প্রানবন্ত উপস্থাপনায় পুরো কবিতার কর্মশালাটি খুব আনন্দমুখর ও উপভোগ্য হয়ে উঠে তারা হচ্ছেন ময়মনসিংহ সাহিত্য সংসদের সাধারণ সম্পাদক কবি ও সফল সংগঠক কবি স্বাধীন চৌধুরী ও অক্টোবর- ডিসেম্বর ২০২১ প্রান্তিকের বীক্ষণের বিদায়ী আহ্বায়ক চির সবুজ কবি সবুজ রহমান।
ফেরার পথে হালুয়াঘাটের উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও হালুয়াঘাটের জনপ্রতিনিধি ও নেতৃবৃন্দের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ ঘটে।
আর সেই সাথে ময়মনসিংহ হতে হালুয়াঘাটের গোবরাখালী যাওয়া ও ফেরৎ আসার পথে অভিনয় শিল্পী আমজাদ শ্রাবণ ও আরেক শিল্পী
মাসুমা টফি একার দ্বারা গাড়ীতে দুই হিজড়ার চরিত্রে ও সংলাপে সবাইকে আমোদিত করে রাখে সারাক্ষণ।
সবশেষে বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব আবুল ফজল তালুকদারের সংক্ষিপ্ত অনুভূতি প্রকাশ, সাতজন কবিকে তাৎক্ষণিক সুন্দর কবিতা লেখা ও আবৃত্তির জন্য পুরস্কার হিসেবে বই প্রদান করা হয়।
সমায়াভাবে ফিরতিপথে গাড়ীতেই রেফেল ড্র করে ১১ জন সৌভাগ্যবানের হাতে ১১ সেট বই উপহার হিসেবে তুলে দেয়া হয়। উপস্থিত ও অনুপস্থিত সকল কবি লেখকদের সুস্বাস্থ্য কামনা করে ইংরেজি নতুন বছর ২০২২ সালের শুবেচ্ছা ও শুভকামনা জানিয়ে বাৎসরিক কবিতার কর্মশালার সমাপ্তি ঘোষণা করা হয় সন্ধ্যার পর পরই। বাংলাদেশ ভারত সীমান্তবর্তী নিকটতম স্থান বিধায় তাড়াতাড়ি স্থান ত্যাগ করে রাত ৮.৩০ ঘটিকায় ময়মনসিংহ ফেরত আসে সকলে।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে