ভাস্কর্য ইস্যুতে বিএনপির অবস্থান পরিষ্কার না : তথ্যমন্ত্রী

বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১০, ২০২০,৮:২৬ পূর্বাহ্ণ
0
19

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ দেশে চলা ভাস্কর্য ইস্যুতে বিএনপির স্পষ্ট বক্তব্যের আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, ভাস্কর্য ইস্যুতে আপনাদের অবস্থান পরিষ্কার না। আপনারা তো জিয়াউর রহমানের ভাস্কর্য সারা বাংলাদেশে বানিয়েছেন। আপনারা আপনাদের বক্তব্য স্পষ্ট করুন। এই অপশক্তির বিরুদ্ধে আপনারা বক্তব্য দিন। এটা করতে আপনাদের এত লজ্জা কেন?

আজ বুধবার দুপুরে তিনি এমন মন্তব্য করেন জাতীয় প্রেস ক্লাবে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপির মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে মঙ্গলবার (৮ ডিসেম্বর) ভাস্কর্যের বিষয়ে প্রশ্ন করা হয়েছিল। তিনি নির্লজ্জের মতো বললেন, এটি আমাদের কাছে কোনো ইস্যু নয়। সমগ্র দেশ যখন ভাস্কর্য ইস্যুতে উত্তাল তখন তিনি বললেন, এটি নাকি তাদের কাছে কোনো ইস্যু নয়। ওনার কাছে ইস্যু হচ্ছে যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনা। ওনার কাছে ইস্যু হচ্ছে দুর্নীতির দায়ে সাজাপ্রাপ্ত আসামি খালেদা জিয়ার পায়ের ব্যথা-হাঁটুর ব্যথা।

তিনি বলেন, অর্থনৈতিক, সামাজিক ও মানব উন্নয়ন সূচকে যখন দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, তখনই স্বাধীনতাবিরোধীদের পরবর্তী প্রজন্ম নতুন অপকৌশলে লিপ্ত হয়েছে। যারা চায়না দেশ এগিয়ে যাক।

মন্ত্রী আরো বলেন, এ দেশে যুগ যুগ ধরে ভাস্কর্য আছে, অনেক ভাস্কর্য নির্মিত হয়েছে। এখন বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণেই তাদের গাত্রদাহ শুরু হয়েছে। তারা এটিকে গ্রহণযোগ্য করার জন্য আবার মাঝে-মধ্যে বঙ্গবন্ধুর পক্ষেও দু’একটি কথা বলছে। এটি তাদের নতুন ছলচাতুরি। তাদের পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য অপকৌশলের অংশ। 

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমাদের প্রথম পরিচয় আমরা বাঙালি। তারপর কে হিন্দু, কে মুসলিম সেটা বিবেচ্য বিষয়। যে ধর্মান্ধ মৌলবাদী গোষ্ঠীকে পরাজিত করে দেশ প্রতিষ্ঠিত করা হয়েছে। এ স্বাধীন দেশে সেই অপশক্তিকে আর মাথাচাড়া দিতে দেওয়া যায় না।

এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলম, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (একাংশ) সাধারণ সম্পাদক শবান মাহমুদ প্রমুখ।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে