বিদেশী তহবিলের প্রকল্পের আয়-ব্যয়ে স্বচ্ছতা চাই : চসিক প্রশাসক

মঙ্গলবার, নভেম্বর ১৭, ২০২০,৯:১৭ পূর্বাহ্ণ
0
4

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন বিদেশী তহবিলে পরিচালিত প্রকল্পের অর্থ সতর্কতা অবলম্বন ও পেশাদারিত্ব রক্ষার মাধ্যমে স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় ব্যয় করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, এভাবে কাজ যথাযথভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব।

তিনি সোমবার টাইগারপাসস্থ বাটালী হিলের কর্পোরেশনের কনফারেন্স রুমে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন (এলআইইউপিসি) প্রকল্পের সেটেলমেন্ট ইমপ্রুভমেন্ট ফান্ড বাস্তবায়নে প্রক্রিয়া অবহিতকরণ কর্মশালায় সভাপতির বক্তব্যে একথা বলেছেন।
কর্মশালায় কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মুহাম্মদ মোজাম্মেল হক, প্রশাসকের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম, নির্বাহী প্রকৌশলী ফরহাদুল আলম, প্রকল্পের টাউন ম্যানেজার মোহাম্মদ সারোয়ার হোসেন খান বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে টাউন ম্যানেজার ৫টি কসপোন্যান্টে তাদের প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে জানিয়ে বলেন, দরিদ্র মানুষদের সংগঠিত করা আমাদের উদ্দেশ্য। তাদের জীবনমানের উন্নয়নে ব্যবসা, শিক্ষা কার্যক্রমে সহায়তায় এই প্রয়াস। তবে শহরের দরিদ্র মানুষের জীবনমানের উন্নয়নের ক্ষেত্র কম। এরপরও এই প্রকল্পের মাধ্যমে ৪০ লাখ মানুষের জীবনমানের উন্নয়নে কাজ চলবে।

কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মুহাম্মদ মোজাম্মেল হক এলআইইউপিসি প্রকল্পের কার্যক্রম কিভাবে বাস্তবায়িত হবে সেই ধাপগুলোর সচিত্র প্রতিবেদনে সন্তোষ প্রকাশ করেন। তিনি তাদের প্রতিবেদনে স্বচ্ছতা, আইনমানার দৃষ্টান্তকে শিক্ষা হিসেবে গ্রহণ করা যায় বলে মন্তব্য করেন্ তিনি বলেন, আমাদের এখানে যে-কোন প্রকল্প বা ঋণের টাকা নয়-ছয় করার সংস্কৃতি চালু আছে। আমার প্রত্যাশা এই প্রকল্পের মাধ্যমে কর্পোরেশনের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত হবে।

উল্লেখ্য, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ইউকেএইড ফরএইন কমনওয়েলথ ডেভেলপমেন্ট অফিস (এফসিডিইউ) এর অধীনে এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে