বঙ্গবন্ধু হত্যার পর দালাল আইন প্রত্যাহার করে ধর্ষকদের রাষ্ট্রীয়ভাবে পুনর্বাসিত করা হয়েছে: নৌ প্রতিমন্ত্রী

সোমবার, অক্টোবর ১২, ২০২০,১০:২৬ পূর্বাহ্ণ
0
6

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহ্‌মুদ চৌধুরী বলেছেন, দেশে যখন আইনের শাসনকে পদদলিত করা হয় তখন অপরাধমূলক বিষয়গুলোয় মানুষ প্রশ্রয় পায়। মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় যারা ধর্ষণ, লুটতরাজ, অগ্নিসংযোগের মতো অপরাধের সাথে জড়িত ছিল; দালাল আইনে যাদের বিচার হচ্ছিল। ’৭৫-এর ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দালাল আইন প্রত্যাহার করা হয়েছে। ধর্ষকদের রাষ্ট্রীয়, সামাজিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিকভাবে পুনর্বাসিত করা হয়েছে।

          প্রতিমন্ত্রী গতকাল সচিবালয়স্থ তাঁর দফতরে বাংলাদেশ নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল মোহাম্মদ শাহীন ইকবাল সাক্ষাৎ করতে এলে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

          খালিদ মাহ্‌মুদ চৌধুরী বলেন, আজকে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। ধর্ষকদের বিচার হয়েছে, অপরাধীদের বিচার হয়েছে, খুনিদের বিচার হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার ধারাবাহিকভাবে তিন মেয়াদের সরকার কোনো ধরনের অপরাধীদের ছাড় দেয়নি। ব্যাংকের টাকা আত্মসাৎ থেকে শুরু করে যারা ধর্ষণের সাথে জড়িত এবং যারা বিভিন্ন অপরাধের সাথে জড়িত আমরা কোনো কিছু লুকাইনি, সবকিছু জনসম্মুখে নিয়ে এসেছি। তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হয়েছে এবং এ ব্যাপারে বর্তমান সরকারের জিরো টলারেন্স।

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘‘আইনমন্ত্রী বলেছেন, এ আইন আরো শক্ত করা হচ্ছে, পরবর্তী কেবিনেট সভায় তিনি সেটি উপস্থাপন করার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেছেন।’’ তিনি বলেন, সরকার অত্যন্ত দৃঢ় ভূমিকায় রয়েছে। যেকোন অপরাধকে আইনের আওতায় এনে বিচারের জন্য যখন একটি সংস্কৃতি পুরোপরি গড়ে উঠবে তখন এ ধরণের অপরাধীরা আর অপরাধ করবে না। তখন এ বিষয়গুলো আরো স্বস্তিদায়ক হবে।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে