বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ একই সত্তার দুটি নাম : পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

মঙ্গলবার, মার্চ ২, ২০২১,৯:৪৩ পূর্বাহ্ণ
0
12

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মোঃ মাহবুব আলী বলেছেন, বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ একই সত্তার দু’টি নাম। সকল অর্থে তিনিই বাংলাদেশ, আমাদের আত্মপরিচয়। জীবনভর তিনি এ দেশ ও মানুষের মুক্তি, উন্নতি ও সমৃদ্ধির জন্য কাজ করেছেন। বাঙালির দুঃখ, বেদনা, আনন্দ ও স্বপ্নকে তিনি নিজের মধ্যে ধারণ করেছেন।

গতকাল রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদ্‌যাপন ও সোনারগাঁও হোটেল শ্রমিক ও কর্মচারী ইউনিয়নের অভিষেক অনুষ্ঠান উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদেরকে পরাধীনতার দাসত্ব থেকে মুক্তি দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ সারা বিশ্বের মুক্তিকামী মানুষের চিরন্তন অনুপ্রেরণার উৎস। জাতির পিতার ৭ই মার্চের ভাষণকে ইউনেস্কো “বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য” হিসেবে মেমোরি অভ্ দভ ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টারে অন্তর্ভুক্ত করেছে। এছাড়া অতি সম্প্রতি ইউনেস্কো “বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ইন্টারন্যাশনাল প্রাইজ ইন দ্য ফিল্ড অভ্ ক্রিয়েটিভ ইকোনমি” নামে একটি আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রবর্তনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে যা বাঙালি জাতি হিসাবে আমাদের জন্য গর্বের ও আনন্দের।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উন্নয়ন দর্শন ছিল এদেশের গণমানুষের সুখ-সমৃদ্ধি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে এক গভীর মানবিক সংগ্রাম। এই দর্শনের লক্ষ্য ছিল বাংলার মানুষের রাজনৈতিক,অর্থনৈতিক ও মানবিক উন্নয়ন। বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের উন্নয়নে যে স্বপ্ন দেখেছিলেন তা এখন বাস্তবায়িত হচ্ছে বঙ্গবন্ধু কন্যার হাত ধরে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী ও বহুমাত্রিক নেতৃত্বে জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী পালনের শুভলগ্নে বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ হতে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ সারা বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল।

কোভিড-১৯ এর প্রভাব কাটিয়ে খুব দ্রুত প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেল ব্যবসায় লাভের ধারায় ফেরত আশায় হোটেলের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শ্রমিককে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, কোভিড-১৯ এর কারণে সারা বিশ্বে পর্যটন শিল্প সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বাংলাদেশও এর ব্যতিক্রম নয়। তবে আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুসারে পর্যটন শিল্পকে উজ্জীবিত করার জন্য কাজ করছি। এর ফলে ইতোমধ্যেই দেশের অভ্যন্তরীণ পর্যটন চাঙ্গা হয়ে উঠছে। এভিয়েশন খাতেও গতি ফিরতে শুরু করেছে। অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট পরিচালনাকারী এয়ারলাইন্সগুলো ইতোমধ্যে তাদের ব্যবসা ৮০ ভাগের ওপরে পুনরুদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ মোকাম্মেল হোসেন, হোটেল ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ আলমগীর ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শ্রম ও জনশক্তি বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ প্রমুখ।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে