বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবসে নানা কর্মসূচি

বুধবার, মার্চ ১৭, ২০২১,১২:০৬ অপরাহ্ণ
0
3

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

আজ ১৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদ্‌যাপন উপলক্ষ্যে দেশব্যাপী নানাবিধ কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র পক্ষে এদিন গোপালগঞ্জে টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে। এ দিবস উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক পৃথক বাণী প্রদান করেছেন। এ উপলক্ষ্যে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিসৌধ প্রাঙ্গণে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনলাইনে প্রধান অতিথি হিসেবে গণভবন থেকে সংযুক্ত হবেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা। স্বাগত বক্তব্য দেবেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ সায়েদুল ইসলাম। একজন শিশু প্রতিনিধির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে দুই জন শিশু প্রতিনিধির বক্তব্য ও বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ মার্চ ভাষণের অনুসরণে আয়োজিত বক্তৃতা প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিশুর ভাষণের উপস্থাপন। গোপালগঞ্জ জেলার শিক্ষার্থীদের লেখা ‘বঙ্গবন্ধু শিশুর লেখায় শিশুর রেখায়’ বই বিতরণ, বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী বইয়ের ওপর কুইজ প্রতিযোগিতা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করবেন। এ বছরের জাতীয় শিশু দিবস এর প্রতিপাদ্য ‘বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন, শিশুর হৃদয় হোক রঙিন’।

এ উপলক্ষ্যে জেলা, উপজেলা সদরে আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আলোচনাসভা, রচনা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। এ দিবস উপলক্ষ্যে জাতীয় পত্রিকায় ক্রোড়পত্র প্রকাশ, জেলা, উপজেলা সদরে সপ্তাহব্যাপী বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ, বঙ্গবন্ধুর জীবনী ও মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক প্রামাণ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, জনবহুল স্থানে পোস্টার প্রদর্শনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও স্থাপনাসমূহে আলোকসজ্জা করা হবে। বাংলাদেশ  বেতার ও  বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ বেসরকারি  টেলিভিশন চ্যানেল, কমিউনিটি রেডিও এবং এফএম রেডিও বিশেষ অনুষ্ঠানমালা প্রচারের কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। এছাড়া শিশুর স্বাস্থ্য সচেতনতা, পুষ্টি ও খাদ্য সম্পর্কে বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠান রয়েছে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তাবায়ন কমিটি ১৭-২৬ মার্চ, দশ দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়, ধর্ম মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগ এবং বাংলাদেশ শিশু একাডেমি বিশেষ কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসসমূহে দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় উদ্‌যাপিত হবে। দেশের সকল ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও উপাসনালয়ে বিশেষ মোনাজাত ও প্রার্থনার আয়োজন করা হয়েছে।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে