পোষা টিয়া মেরে ফেলেছে কুকুর, বাবা-ছেলের করুণ অবস্থা

শনিবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১৯,৬:৫৫ পূর্বাহ্ণ
0
54

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধার বাসিন্দা রবিউল ইসলাম। বয়স ২৫। শখ করে একটি টিয়িা পাখি পোষেন এই যুবক। শুক্রবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকালে ওই পাখিটি খাঁচা থেকে ছেড়ে দিয়ে মাকে দেখতে বলে বাহিরে চলে যান রবিউল ইসলাম। বাড়িতে ফিরে দেখেন প্রিয় পাখিটিকে কুকুর মেরে ফেলেছে। এতে মায়ের সাথে অভিমান করে বিষপান করেন রবিউল। ছেলেকে বিষপান করতে দেখে বাবা আবুল হোসেনও (৭০) বিষপান করেন। পরে বাবা ছেলেকে হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে আশংকাজনক অবস্থায়।

হাসপাতালের চিকিৎসক ও স্থানীয়রা জানান, দোলাপাড়া গ্রামের আবুল হোসেনের বাড়িতে একটি টিয়া পাখি পোষতেন। শুক্রবার বিকেলে ছেলে রবিউল ইসলাম ওই পাখিটি খাঁচা থেকে ছেড়ে দিয়ে মাকে দেখতে বলে বাহিরে চলে যান। পাখিটি উঠানে ঘোরাফেরা করলে একটি কুকুর মেরে ফেলে। ফিরে এসে পোষা প্রিয় টিয়া পাখির মৃতদেহ দেখে রবিউল ঝগড়ায় জড়ায় তার মায়ের সাথে। এতে রবিউল ইসলাম মায়ের সাথে অভিমান করে বিষপান করে। ছেলেকে বিষপান করতে দেখে অভিমান করে রবিউলের বাবা আবুল হোসেনও বিষপান করে। স্থানীয়দের সহায়তায় পরিবারের লোকজন বাবা-ছেলেকে উদ্ধার করে হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রমজান আলী জানান, বাবা ছেলে দুই জনেই আশংকা মুক্ত। তবে সুস্থ হতে কিছুটা সময় লাগবে।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে