নেত্রকোনার বারহাট্টায় অসহায় নূরুন্নাহারের পাশে কেউ নেই

মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৭, ২০২১,২:৫৬ অপরাহ্ণ
0
15

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

নেত্রকোনা প্রতিনিধি : নেত্রকোনা জেলার বারহাট্টা উপজেলায় আসমা ইউনিয়নের মোছা: নুরুন্নাহার স্বামী মৃত আব্দুল খালেক এর জমা জমি বেদখল দেয় এলাকার কিছু কুচক্রী মহলের লোকজন। নুরুন্নাহারের পুকুরের মাছ গাছ-গাছালি ও তার ঘড়-বাড়ীসহ দখল করে নিয়ে যেতে চায় এলাকার আব্দুল মজিদ মিয়া ও তার সহযোগীরা ।  

নুরুন্নাহার ও তার পরিবারের কেউ কোন কিছু বলতে গেলে বলে তাদেরকে মেরে ফেলবে এবং তাদেরকে মেরে ফেললে কিছুই হবে না, কেউ কিছু করতে পারবে না এ কথা বলে এলাকার কুচক্রী মহলের লোকজন।
তবে এলাকাবাসী ও নুরুন্নাহারের পরিবার সূত্রে জানা যায়, নুরুন্নাহারের কিছু জমি আব্দুল মজিদ জোরপূর্বক দখল করে নিয়েছে। নুরুন্নাহারের নদীর পাড়ে একটা বাড়ি ছিল সেটি দখল করেছে।

বারহাট্টা উপজেলার ছয়গাঁও গ্রামের অসহায় নুরুন্নাহার বলেন, গত ১১-০৩-২০২১ তারিখে কুচক্রী মহলের লোকজন আমাদের পুকুরের মাছ ধরতে ছিল। তখন নুরুন্নাহার ও তার পরিবার তাদেরকে নিষেধ করতে গেলে আব্দুল মজিদ ও তার সহযোগীরা ধারালো দা, বিভিন্ন অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে আমাদেরকে ডাক চিৎকার করে বলতেছে মাছ ধরতে বাঁধা দিলে খুন করবে এবং মেরে ফেলারও হুমকি দিয়েছে। নুরুন্নাহার বলেন, আমার কোন ছেলে সন্তান নাই আমার বাঁচার উপায় নাই। আমি বাড়িতে থাকতে পারিনা আমাকে বাড়ি থেকে বের করে দিতে চায় কয়েকবার মারধর করেছে, আমার বাড়িঘর ভাঙচুর করে এখন আমি মেয়েদেরকে নিয়ে কোথায় যাব কি করব।

আব্দুল মজিদ ও তাঁর সহযোগীরা বলেন, নুরুন্নাহারের পরিবারকে বারহাট্রা থেকে উচ্ছেদ করবে না হয় মেরে ফেলবে ও তার সকল জমা-জমি তারা নিয়ে যাবে।
তবে অসহায় নূরুন্নাহারের কোন ছেলে সন্তান নেই। তার ৯টি মেয়ে ছিল । ৫ম মেয়ে জোসনা আক্তার সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান ২ বছর আগে। বর্তমানে তার ৮টি মেয়ে আছে। নুরুন্নাহারের কোন ছেলে সন্তান নেই।

কুচক্রী মহলের ব্যক্তিরা হলেন, আব্দুল মজিদ পিতা-মৃত হাজী গন্দু মিয়া, মোঃ হযরত আলী, মো:করজুত মিয়া, আজগর আলী, আলী আগবর, শহিদ মিয়া, শফিকুল ইসলাম সবার পিতা আব্দুল মজিদ মিয়া গ্রাম: ছয়গাঁও ইউনিয়ন আসমা উপজেলা বারহাট্রা জেলা নেত্রকোনা।

তারপর অভাগী নুরুন্নাহার তাদেরকে কিছু না বলিয়া বারহাট্টা থানায় অভিযোগ করতে গেলে বারহাট্রা থানার অফিসার ইনচার্জ বলেন আপনার মামলা নেওয়া যাবে না আপনি কোর্টে মামলা করেন।
বারহাট্টা থানার অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান বলেন, অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে