তুরস্কে আয়া সোফিয়ার পর মসজিদ হচ্ছে কোরা জাদুঘর

শনিবার, আগস্ট ২২, ২০২০,৫:৩৯ পূর্বাহ্ণ
0
31

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েপ এরদোয়ান আয়া সোফিয়ার পর এবার ইস্তাম্বুলের কোরা জাদুঘরকে মসজিদ হিসেবে ব্যবহারের নির্দেশনা দিয়েছে। ইতিপূর্বে তা জাদুঘর ও গুদামঘর হিসেবে ব্যবহৃত হত।

গতকাল শুক্রবার তুরস্কের গণমাধ্যমে এ নির্দেশনা প্রকাশ করা হয়। প্রকাশিত নির্দেশনা মতে, ফাতেহ জেলায় অবস্থিত এ স্থাপনায় নিয়মিত এবাদত চালু করতে তা ধর্মবিষয়ক অধিদপ্তরের কাছে হস্তান্তরের কথা বলা হয়েছে।

পঞ্চম শতাব্দিতে বাইজেন্টাইন শাসনামলে এটি অর্থডোক্স খ্রিস্টানদের গির্জা হিসেবে ব্যবহৃত হত। ওই সময় তা কোরার পবিত্র গির্জা (The Church of the Holy Saviour in Chora) নামে পরিচিত ছিল। ১৪৫৩ সালে মুসলিমরা কনস্টান্টিনোপল বিজয়ের পর কিছুকাল তা গির্জা ছিল। ১৫১১ সালে স্থাপনাটির পাশে একটি মিনার তৈরি করে এটিকে মসজিদ করা হয়। সুলতান দ্বিতীয় বাইজিদের মন্ত্রী আতিক আলি পাশার নির্দেশনায় তা মসজিদ হিসেবে ব্যবহার শুরু হয়।

ইস্তাম্বুলের অন্যান্য স্থাপনার মতো কোরা জাদুঘরও দৃষ্টিনন্দন একটি স্থাপনা। দেওয়ালে লাগানো মূল্যবনা পাথর ও মোজাইক দর্শককে মুগ্ধ করে।

১৯৪৫ সালের আগস্টে তুরস্কের মন্ত্রী পরিষদের নির্দেশনায় মসজিদটি জাতীয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে জাদুঘর ও গুদামঘর হিসেবে ব্যবহার শুরু হয়। স্থাপনাটি অটোমান সুলতানদের ওয়াকফ সম্পত্তির অন্তর্ভূক্ত হওয়ায় ২০১৯ সালের নভেম্বরে তুরস্কের স্টেট কাউন্সিল ওই আইনটি রহিত করে।

গত মাসের ২৪ জুলাই ইস্তাম্বুলের বিশ্বখ্যাত স্থাপত্য নিদর্শন আয়া সোফিয়া মসজিদ হিসেবে ব্যবহার শুরু হয়। ১৯৩৪ সালে তুরস্কের মন্ত্রী পরিষদ আয়া সোফিয়াকে জাদুঘর করার নির্দেশনা দেওয়ার ৮৬ বছর পর তাতে প্রথম জুমার নামাজ শুরু হয়।

সূত্র : আনাদোলু এজেন্সি

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে