ড. ওয়াজেদ মিয়ার ৮০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া

বুধবার, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২২,৫:২৭ অপরাহ্ণ
0
6

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী ও বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের প্রাক্তন চেয়ারম্যান প্রয়াত ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া এর জন্মদিন উপলক্ষে অদ্য ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২২ খ্রি. বুধবার বিকাল ৩:০০ ঘটিকায় বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশন, প্রধান কার্যালয়ের কনফারেন্স সেন্টারের আলফা হলে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু করা হয় এবং শুরুতেই মহান পরমাণু বিজ্ঞানী প্রয়াত ড. এম এ. ওয়াজেদ মিয়া এর আত্মার মাগফেরাত ও শান্তি কামনা করে দোয়া করা হয়। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের চেয়ারম্যান (রুটিন দায়িত্ব) ড. মোঃ আজিজুল হক। কমিশনের চেয়ারম্যান মহোদয়, সদস্যবৃন্দ এবং উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ প্রয়াত ড. এম এ. ওয়াজেদ মিয়া এর বর্ণাঢ্য কর্মময় জীবনের উপর আলোকপাত করেন।

আলোচনায় ড. এম এ. ওয়াজেদ মিয়া এর একনিষ্ঠ দেশপ্রেম ও পরমাণু বিজ্ঞানে তাঁর আন্তর্জাতিক খ্যাতির চিত্র উঠে আসে। বিজ্ঞানের উন্নয়ন ছাড়া দেশের সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন সম্ভব নয়-এ বিশ্বাস নিয়ে ড. ওয়াজেদ মিয়া বিজ্ঞান উন্নয়নের জন্য আজীবন চেষ্টা চালিয়ে গেছেন এবং মেধা, মনন ও সৃজনশীলতা দিয়ে জনগণের কল্যাণে কাজ করে গেছেন।

তাঁর অক্লান্ত প্রচেষ্টার ফলেই আজ বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনে বিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখায় ব্যাপক উন্নয়ন ও গবেষণার দ্বার প্রসারিত হয়েছে। রাজনীতিতে সাফল্যের প্রচুর সম্ভাবনা থাকা সত্ত্বেও পরমাণু বিজ্ঞানী মরহুম ড. ওয়াজেদ মিয়া সে দিকে না গিয়ে বিজ্ঞানচর্চা ও বিজ্ঞানের উন্নয়নে ব্রতী হন।

ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়ার আজীবনের স্বপ্ন রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান এর অদম্য প্রচেষ্ঠার ফলে আজ তাঁর সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের সম্মানীত সদস্যবৃন্দ, প্রধান কার্যালয়সহ ঢাকাস্থ সকল প্রতিষ্ঠান/কেন্দ্র/বিভাগের পরিচালকবৃন্দ, কমিশনের অর্থ উপদেষ্টা এবং অন্যান্য কর্মকর্তবৃন্দ যথাযথ স্বাস্থ্য বিধি মেনে অংশগ্রহণ করেন।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে