ঝালকাঠিতে জোয়ার ও বিরামহীন বর্ষণে স্বাভাবিকের চেয়ে তিন-চার ফুট পানি বৃদ্ধি

শনিবার, আগস্ট ২২, ২০২০,৪:৪৯ পূর্বাহ্ণ
0
14

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

বাধন রায়, ঝালকাঠি : ঝালকাঠির বিষখালী-সুগন্ধা ও গাবখান নদীর জোয়ারের পানি স্বাভাবিকের চেয়ে তিন-চার ফুট বৃদ্ধি ও বিরামহীন প্রবল বর্ষণের কারণে গত তিন দিন যাবৎ নিম্নাঞ্চলের হাজার হাজার বাড়ী-ঘর প্লাবিত হয়েছে।

শত শত পুকুর ও জলাশয়ের মাছ ভেসে গেছে, পানের বরজ, কৃষির ব্যপক ক্ষতিসহ আমনের বীজতলা তিন-চার ফুট পানির নিচে তলিয়ে গেছে, গ্রামের সংযোগ সড়ক পানির স্রোতে বিভিন্ন জায়গা থেকে ভেঙ্গে যাওয়ায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

আমুয়া হাসপাতাল সংলগ্ন সানু সিকদারের বাড়ীর সামনে থেকে রাস্তাটি ভেঙ্গে যাওয়ায় হাসপাতালের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। ঝালকাঠি শহরের নিম্নাঞ্চল, নলছিটি ও রাজাপুর বিভিন্ন গ্রাম পানিতে প্লাবিত। বিশেষ করে ভেরি বাঁধ না এবং বিষখালী নদীর তীরবর্তী হওয়ায় কাঠালিয়া উপজেলা পরিষদের মৎস্য, পরিসংখ্যান, যুবউন্নয়ন, সমবায়, আনসার বিডিপি, পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক ও ডরমেটির ভবনগুলোর অফিসকক্ষে পানি ঢুুকে পরেছে।

উপজেলা পরিষদের ভবনের সামনের রাস্তা, সাব রেজিস্ট্রি অফিস ও ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের রাস্তার উপরে দেড় থেকে দুই ফুট পানিতে প্লাবিত হয়েছে। নিম্নাঞ্চলের অধিকাংশ বাড়ী ঘরের আঙ্গিনা ও রান্নার চুলায় পানি ঢুকে পরায় শত শত পরিবার রান্না করতে পারছেন না। গবাদি পশুর ঘর ও গোখাবার পানিতে ডুবেযাওয়ায় অনেকেই পার্শ্ববর্তী উচু জায়গায় গবাদি পশু সরিয়ে নিয়েছেন। তবে গোখাদ্যের অভাব রয়েছে প্রকট। পানি বৃদ্ধির কারনে পোল্ট্রি খামারিরা মারাত্মক দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন।

পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন বিপদ সীমার ৩৫ সেন্টি মিটার উপর দিয়ে এ সব নদী গুলোর পানি প্রবাহিত হচ্ছে।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে