জনসমর্থন হারিয়ে বিএনপি এখন অজুহাত পার্টিতে পরিণত হয়েছে : রেজাউল করিম

সোমবার, জানুয়ারি ২৫, ২০২১,১১:২৮ অপরাহ্ণ
0
6

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের শেষ দিনে বিভিন্ন সংগঠন, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া, দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়, ব্রিফিং প্রদান ও বহদ্দারহাট হাট এলাকায় প্রচারণা চালিয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো. রেজাউল করিম চৌধুরী।

মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন, সহ-সভাপতি এডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, সহ-সভাপতি আলতাফ হোসেন বাচ্চু, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, শফিক আদনান, প্রচার সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুক, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক চন্দন ধর, মো. ঈসা, চট্টগ্রাম মহানগর জাতীয় শ্রমিক লীগের সহ সভাপতি শফর আলী, চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আবদুল কাদের সুজন, দক্ষিন জেলা কৃষক লীগের সভাপতি মো. আতিকুর রহমান, গণসংযোগকালে রেজাউল করিম চৌধুরী সাথে ছিলেন। এ সময় তারা এলাকাবাসীকে সালাম ও শুভেচ্ছা জানিয়ে উন্নয়নের প্রতীক নৌকায় ভোট প্রার্থনা করেন।

শাহদাতের নির্বাচনী এজেন্ট ও নেতাকর্মীদের প্রশাসনিকভাবে হয়রানি করা হচ্ছে বলে বিএনপির অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে সাংবাদিকদের রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, এসব অভিযোগের কোন ভিত্তি নেই। আমরা কাদের এজেন্ট হিসেবে মনোনীত করেছি তা যেমন কোন মিডিয়ায় প্রকাশ করিনি, তেমনি বিএনপি কাদের এজেন্ট হিসেবে রাখছেন তা কেউ জানেনা। তাহলে কিভাবে আমরা তাদের এজেন্টদের হয়রানি করবো।

তিনি এও বলেন যে, যদি কারো বিরুদ্ধে মামলা থাকে এবং ওয়ারেন্টভূক্ত আসামীকে প্রশাসন খোঁজে বা গ্রেফতারের পদক্ষেপ নেয় সেটা এলাকার শান্তি শৃঙ্খলার স্বার্থে প্রশাসন ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী করতেই পারে, এখানে আপনার আমার কোন হাতও নেই আপত্তিও নেই। বিএনপি মূলত জনসমর্থন হারিয়ে, জনগণ দ্বারা প্রত্যাখ্যাত হয়ে অজুহাত ও অভিযোগ পার্টিতে পরিনত হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, বিএনপি আসলেই কোন এজেন্ট দিচ্ছেন কিনা কিংবা আদৌ নির্বাচন করতে চায় কিনা তা এখনো পরিস্কার নয়।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে