চিশতীনগরে সেমিনার : একটি প্রতিবেদন

শনিবার, মে ২১, ২০২২,২:১৯ অপরাহ্ণ
0
197

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

শাহরিয়ার আহমেদ : গত ১৫ মে, ১লা জ্যৈষ্ঠ, রবিবার দিবাগত সন্ধ্যা থেকে প্রায় মধ্যরাত পর্যন্ত চিশতীনগরে জমজমাট জনসমাগমের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হল সেমিনার। শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলাধীন পন্ডিতসারে অবস্থিত এক বহুমাত্রিক বৈশিষ্ট্যমন্ডিত সুফি ঘরানার ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের নাম চিশতীনগর। চিশতীনগরের সুমহান প্রতিষ্ঠাতা চিশতীয়া ঘরানার উচ্চ মর্যাদায় অভিষিক্ত মহান অলিআল্লাহ হযরত কোতবুল আলম শামপুরী রাঃ ধরাধামে এসেছিলেন ১৩১২ সনের ১লা জ্যৈষ্ঠ তারিখে। তাই দিনটি তার “রোযে মোকাদ্দম” তথা ভূমিতে পদার্পন করার দিবস হিসাবে পালিত হয়। এবারের ১লা জ্যৈষ্ঠের রাড়তি আকর্ষণ ছিল হযরত কোতবুল আলম শামপুরী রাঃ’র জ্যোতির্ময় জীবন প্রসঙ্গে অত্যন্ত বিশ্লেষণধর্মী আলোচনায় সমৃদ্ধ একটি সেমিনার। সেমিনারের বিষয় ছিল, “হযরত কোতবুল আলম শামপুরী রাঃ’র জ্যোতির্ময় জীবন, আধ্যাত্মিকতা ও সমাচ চেতনা।” সেমিনার অনুষ্ঠিত হল প্রায় তিন হাজার দর্শক শ্রোতার সমাবেশে।

মূল প্রবন্ধটি অত্যন্ত মনোরম পুস্তকাকারে মুদ্রিত করে উপস্থিত সকলের হাতে পৌছেঁ দেয়া হয়। চিশতীনগর খানকায়ে চিশতীয়ার বর্তমান সাজ্জাদানশীন সৈয়দ গোলাম মোদাসসের মাওলা মা. যি. আ:’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সেমিনারের মূল প্রবন্ধের গ্রন্থনা ও উপস্থাপনা করেন পীরজাদা প্রকৌশলী সৈয়দ গোলাম মুরসালিন। অনুষ্ঠানের সার্বিক আয়োজন ও তত্ত্বাবধানের দায়িত্বও তিনি পালন করেন। একজন মহান অলিআল্লাহর পবিত্র জীবনের অলৌকিক ঘটনাবলী, আত্মিক অবস্থান ও আধ্যাত্মিক অর্জনের জটিল বিষয়কে কোরআন ও হাদীসের আলোকে বর্ণনার মাধ্যমে অত্যন্ত বিশ্লেষণমূলক পর্যালোচনায় মূল প্রবন্ধটি উত্থাপিত হয়। অনুষ্ঠান সঞ্চালকের দায়িত্বে ছিলেন ডা. সৈয়দ গোলাম মোগনী মাওলা এবং আরবাবুর রহমান পরাগ।

প্রধান অতিথির আসন অলংকৃত করেন প্রফেসর ড. আসরারুল হক চিশতী, চেয়ারম্যান ইসলামের ইতিহাস বিভাগ, সরকারী এম এম কলেজ, টাঙ্গাইল। অত্যন্ত মূল্যবান ও তথ্যপূর্ণ বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক শফিউল বাশার, এডভোকেট মির্জা হযরত সাঁইজি, সৈয়দ গোলাম মুঈনুদ্দীন, ডা. সৈয়দ গোলাম মোগনী মাওলা।

অনুষ্ঠানের প্রারম্ভে কোরআন তেলাওয়াতের পর চট্টগ্রামের সুফি স্পিরিচুয়াল ফাউন্ডেশনের পরিচালক জনাব ওসমান ফারুকী কর্তৃক হযরত খাজা গরীব নাওয়ায মুঈনুদ্দীন চিশতী আজমেরী রাঃ’র উদ্দেশ্যে রচিত উর্দূ কালাম পেশ করেন ওসমান ফারুকীর ছাত্রবৃন্দ। অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে চিশতীনগরের মহান প্রতিষ্ঠাতা হযরত শাহ সুফি সৈয়দ গোলাম মাওলা চিশতী রাঃ’র উদ্দেশ্যে নিবেদিত স্বরচিত কবিতা পাঠ করেন বহু গ্রন্থের প্রনেতা বি, এম বাতেন সিদ্দিকী। সভাপতির ভাষণের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান সমাপ্ত হয়।

উল্লেখ্য, শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলধীন পন্ডিতসারে অবস্থিত চিশতীনগর খানকায়ে চিশতীয়া লক্ষ লক্ষ মানুষের আধ্যাত্মিক ও জাগতিক কল্যাণ কেন্দ্র। বিভিন্ন সমাজকল্যাণমূলক কর্মসূচীর সাথে এই প্রতিষ্ঠান পূর্ণাঙ্গ ও সক্রিয় ভূমিকা রেখে এক ব্যতিক্রমী ভূমিকা পালন করে আসছে বছরের পর বছর ধরে।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে