খালেদার পরবর্তী শুনানি ১২ ডিসেম্বর

বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৫, ২০১৯,৫:৪৩ পূর্বাহ্ণ
0
20
ফাইল ছবি

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মেডিক্যাল রিপোর্ট জমা দিতে পারেনি রাষ্ট্রপক্ষ আরো কিছু স্বাস্থ্য পরীক্ষা বাকি আছে বলে জানিয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ। উক্ত কারণ দেখিয়ে আগামী ১১ ডিসেম্বরের মধ্যে অবশ্যই মেডিক্যাল রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ। ১২ ডিসেম্বর খালেদা জিয়ার জামিনের আপিল শুনানি হবে বলে আদেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ। এ ঘটনায় আদালতে বিএনপি ও আওয়ামী লীগপন্থী আইনজীবীদের মধ্যে হট্টগোল চলছে আদালতে।

আদালত সূত্র জানায়, আজ বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়ার জামিনের আপিল শুনানি শুরু হয়। এ সংক্রান্ত শুনানি শুরু হয় প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে। শুরুতে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম জানান, খালেদা জিয়ার আরো কিছু স্বাস্থ্যগত পরীক্ষা বাকি আছে। এ জন্য দুই সপ্তাহ সময় প্রয়োজন। এরপর আদালত এক সপ্তাহ সময় দিয়ে ১২ ডিসেম্বর নতুন দিন নির্ধারণ করেন।

নতুন তারিখ নির্ধারণের পরই আদালতে বিএনপি ও আওয়ামী লীগপন্থী আইনজীবীদের মধ্যে হট্টগোল শুরু হয়। একপর্যায়ে প্রধান বিচারপতিদের নেতৃত্বে বিচারকরা এজলাস ত্যাগ করেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত হট্টগোল চলছিল।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় করা খালেদা জিয়ার জামিনের আবেদনের ওপর আপিল বিভাগে শুনানির জন্য আজ বৃহস্পতিবার দিন ধার্য ছিল। প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগের ছয় বিচারপতির বেঞ্চ গত ২৮ নভেম্বর এক আদেশে খালেদা জিয়ার সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা ৫ ডিসেম্বরের মধ্যে জানাতে বিএসএমএমইউ ভিসিকে নির্দেশ দেন। খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য একটি মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করতে বলা হয় ওই নির্দেশনায়। একই সঙ্গে গত ৭ অক্টোবর গঠিত মেডিক্যাল বোর্ডের রিপোর্টও দাখিল করার নির্দেশ দেওয়া হয়।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে