কেউই আইনের উর্ধ্বে নয় : আইনমন্ত্রী

বুধবার, নভেম্বর ১০, ২০২১,১০:১৭ পূর্বাহ্ণ
0
4

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

ঋণ জালিয়াতি ও অর্থ আত্মসাতের মামলায় সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহাকে পৃথক দু’টি ধারায় ১১ বছরের কারাদণ্ড দেওয়ার বিষয়ে  আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, এই রায়ের মাধ্যমে প্রমাণিত হলো, কেউই আইনের উর্ধ্বে নয়। তিনি বলেন, যিনি সরকার বা রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন, তাঁকে তাঁর কর্মকাণ্ড সম্পর্কে আরো সতর্ক থাকা উচিৎ।  সবসময় ‘ট্রান্সপারেন্সি এবং অ্যাকাউন্টিবিলিটি  মেইনটেইন করা উচিৎ’ । এটা আজকের রায় থেকে শেখার বিষয়।

গতকাল সচিবালয়ে  নিজ দপ্তরে  রায়ের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে সাংবাদিকদের মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, আমি অবশ্যই বলবো,  আজ বিচার বিভাগের জন্য  সুখকর দিন নয়। কিন্তু এটাও ঠিক যে, অন্যায় করলে তার বিচার হবে। সেক্ষেত্রে আমার মনে হয় এটা একটা দৃষ্টান্ত স্থাপন হলো।

মন্ত্রী বলেন, ‘আই অ্যাম নট ভেরি হ্যাপি।’ এর কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিচার বিভাগের সাথে তিনি (এসকে সিনহা) সম্পৃক্ত ছিলেন। তিনি প্রধান বিচারপতি ছিলেন। আমি একজন আইনজীবীও। আমিও বিচার বিভাগের সাথে সারাজীবনই সম্পৃক্ত। সেজন্য এটা আমার জন্য সুখকর হতে পারে না।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ১৯৭৫ সাল থেকে ১৯৯৬ পর্যন্ত আমরা কী দেখেছি, এই দেশে জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যা করলেও একটা মামলা হয়নি। এই সংস্কৃতি থেকে আমরা বেরিয়ে এসেছি। পর্যায়ক্রমে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলা, জেলহত্যা মামলা, মানবতাবিরোধী ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার এবং অন্যান্য যেসব দুর্নীতির বিচার হয়েছে তার মাধ্যমে প্রমাণিত হয়েছে, দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা হয়েছে।  আইন ও আদালত তার নিজস্ব গতিতে চলে। এক্ষেত্রে অন্যায়ের বিচার হবে এবং অন্যায় প্রতিরোধ হবে।

সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে এরকম অন্যায় কোনো প্রধান বিচারপতি করেননি। সেজন্য এরকম বিচার করার প্রয়োজন হয়নি। এরকম অন্যায় হলে নিশ্চয়ই বিচার হতো। পৃথিবীর ইতিহাসে এরকম  নজির আছে বলেও জানান তিনি।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে