কুষ্টিয়ায় গো-খাদ্যের হঠাৎ দাম বৃদ্ধিতে বিপাকে খামারিরা

সোমবার, আগস্ট ৫, ২০১৯,৫:৩২ পূর্বাহ্ণ
0
29

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

কোরবানি ঈদ সামনে রেখে কুষ্টিয়ার গো-খামারিরা ব্যস্ত সময় পার করছেন । গবাদি পশুর ক্রেতা আকর্ষণ করতে বাড়তি পরিচর্যায় মনোযোগ দিচ্ছেন । তবে হঠাৎ করে গো-খাদ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় খামারিরা কিছুটা চিন্তিত। জেলা প্রশাসন বলছে, বাজার মনিটরিংয়ের মাধ্যমে সহনীয় পর্যায়ে রাখা হবে গো-খাদ্যের দাম ।

কুষ্টিয়ার গো খামারিরা কাঁচা ঘাস, খড় ও ভুষি খাইয়ে দেশীয় পদ্ধতিতে গরু মোটাতাজা করছেন । গবাদি পশুর বাড়তি পরিচর্যা করছেন তারা কোরবানিকে সামনে রেখে। তবে গো খাদ্যের দাম নিয়ে কিছুটা অসন্তোষ খামারিদের। তাদের দাবি, ঈদের আগে হঠাৎ করে গো-খাদ্যের দাম ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা বস্তা প্রতি বেড়ে গেছে । এতে লাভের অংকে ভাটা পড়ার শঙ্কা করছেন প্রান্তিক খামারিরা। তাদের দাবি এ অবস্থায় সরকারিভাবে বাজার মনিটরিং করার ।এক খামারি বলেন, কোরবানির ঈদ আসলেই এত বেশি বেড়ে যায় যে গরুর খাবারের দাম, আমাদের গরু লালন পালন করে সেটি বিক্রি করে  আর কিছুই লাভ থাকে না।

আরে
 খামারি বলেন, ছয় মাস আগে যে খাবার ছিল ১৭০০ টাকা করে সেটি এখন  সাড়ে ১৮০০ টাকা করে হয়ে গেছে।
অপর একজন বলেন, গরুর খাবার যেসব মিলে তৈরি হয়ে ওই সব মিল মালিকদের যদি একটু মনিটরিং করা হয় তাহলে মনে আমাদের নাগালের মধ্যে থাকে
এই দামটা ।জেলা প্রশাসন বিষয়টি আমলে নিয়ে বাজার মনিটরিংয়ের আশ্বাস দিয়েছে।


কুষ্টিয়া অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আক্তার জাহান বলেন, প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তাদের নিয়ে, ইউএনওদের নিয়ে আমরা একটা বৈঠক করতে চাচ্ছি এই কারণে যে, এরা যাতে অযৌক্তিক দাম বাড়াতে না পারে। শুধু সেটাই নয়, যাতে খাদ্যে ভেজালও না দিতে পারে।  মনিটরিং করছি
আমরা। আশা করি, এই জেলায় ঘটবে না এই ধরণের ঘটনা । আর যদি ঘটেও তাদের সাথে সাথে আনা হবে শাস্তির আওতায় । কুষ্টিয়া প্রাণিসম্পদ অফিসের দেয়া তথ্য মতে, কোরবানিকে কেন্দ্র করে জেলায় ২৪ হাজার খামারে ৯৬ হাজার গরু এবং ৩৭ হাজার ছাগল ও ভেড়া পালন করছেন খামারিরা।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে