এসএ গেমসে এক ম্যাচ হাতে রেখেই ফাইনাল নিশ্চিত করল সৌম-শান্তরা

শনিবার, ডিসেম্বর ৭, ২০১৯,৯:৪৩ পূর্বাহ্ণ
0
98

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

দক্ষিণ এশিয়ান গেমসে (এসএ) নিজেদের তৃতীয় ম্যাচেও জিতল বাংলাদেশ অনুর্ধ-২৩ দল। বাংলাদেশের ছুড়ে দেওয়া ১৫৬ রানের টার্গেটে খেলতে নামা নেপাল ১১১ রানে থেমে গেলে ৪৪ রানে জয় পায় টাইগাররা। ফলে সৌম-শান্তরা এক ম্যাচ হাতে রেখে ফাইনাল নিশ্চিত করল। আজ শনিবার এসএ গেমসে পুরুষ ক্রিকেটে মুখোমুখি হয় দুই দল। টস জিতে নেপালের অধিনায়ক বাংলাদেশকে আগে ব্যাটিংয়ে পাঠায়। 

তবে বাংলাদেশ ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো করতে পারেনি। দলীয় ১৬ রানের মধ্যেই পড়ে যায় ৩ উইকেট। ওপেনার মোহাম্মদ নাঈম শেখ ৬ বলে ৬ আর সৌম্য সরকার ৮ বলে ৬ রান করে আউট হন। এরপর সাইফ হাসানও ০ রানে বিদায় নেন। এতে টাইগাররা চাপে পড়ে যায়। এ অবস্থায় দলকে চাপমুক্ত করার চেস্টা করে অধিনায়ক নাজমুল হাসান শান্ত ও ইয়াসির আলি। তবে তাদের জুটি বেশিক্ষণ দীর্ঘস্থায়ী হতে পারেনি। দলীয় ৫৯ রানের মাথায় সাজঘরে ফেরেন ইয়াসির আলি। আউট হওয়ার তিনি করেন ১৪ রান। তাদের জুটিতে আসে ৯৪ রান।

এরপরই শান্ত-আফিফের ব্যাটিং তান্ডবে ১৫৫ রানের বিশাল টার্গেট দাড় করায় বাংলাদেশ। আউট হওয়ার আগে ৫২ রানের ইনিংস খেলেন আফিফ। তার মধ্যে ৬টি চার আর একটি ছক্কার মার রয়েছে। অপরদিকে ৭৫ রানে অপরাজিত থাকেন দলপতি শান্ত। তিনিও ৬০ বলে চারটি করে চার ও ছক্কায় এই ইনিংস সাজান।

জবাবে ১৫৬ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে তানভির-সুমন খানের দারুণ বোলিংয়ে মাত্র ১৪ রানেই ৩ উইকেট হারায় নেপাল। নিজের প্রথম ওভারেই বোলিংয়ে এসে দুই উইকেট নেন তানভির। পরের ওভারে বোলিংয়ে এসে আরো একটি উইকেট নেন সুমন খান।

এরপর নেপালের জি মাল্লা ও ডিএস এইরি ৩২ রান যোগ করলেও তাদেরকে বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে দেননি সৌম্য সরকার। এইরিকে ১৬ রানে ফিরিয়ে দেন তিনি। তারপর ঘুরে দাড়াতে পারেনি নেপাল। শেষ পর্যন্ত ৯ উইকেটে ১১১ রানে থামে তারা। উল্লেখ্য, এর আগে মালদ্বীপ ও ভুটানের বিপক্ষে বড় জয় পায় সৌম্য ও শান্তরা। 

বাংলাদেশ একাদশ:
নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), নাঈম শেখ, সাইফ হাসান, ইয়াসির আলী, আফিফ হোসেন, সৌম্য সরকার, তানভীর ইসলাম, হাসান মাহমুদ, সুমন খান, মাহিদুল ইসলাম ভূঁইয়া ও মেহেদী হাসান।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে