এডিসন অ্যালায়েন্স-এ বাংলাদেশের প্রতিনিধি আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

মঙ্গলবার, জুন ১, ২০২১,১১:৫১ পূর্বাহ্ণ
0
15

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

ডিজিটাল অর্থনীতিতে বৈশ্বিক এবং ন্যায়সঙ্গত এ্যাক্সেস নিশ্চিত করতে ‘এসেনশিয়াল ডিজিটাল ইন্সফ্রাস্ট্রাকচার এন্ড সার্ভিসেস নেটওয়ার্ক এডিসন অ্যালায়েন্স’ নামে একটি জোট গঠন করেছে ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফোরাম। এই জোটে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি  প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

২০১৯ সালে করোনা মহামারির ফলে সারা বিশ্বে যে নতুন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে, তাতে ডিজিটাল প্রযুক্তির সহজলভ্যতার ক্ষেত্রে নাটকীয় পরিবর্তন এসেছে। এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে কাজ করতে, শিখতে ও জীবন যাপনের অনুসঙ্গ হিসেবে ব্যবহার করতে মানুষকে আগের চেয়ে অনেক বেশি সক্ষম করে তুলেছে। একই সাথে এই মহামারি বিশ্বের প্রায় অর্ধেক জনসংখ্যার মধ্যে বিদ্যমান বৈষম্য আরো বাড়িয়েছে। পৃথিবীর প্রায় ৩ দশমিক ৬ বিলিয়ন মানুষ অফলাইনে থাকেন। উন্নত বিশ্বের জনসংখ্যার প্রায় ৫০ শতাংশের জন্য ব্রডব্যান্ড কানেক্টিভিটি এখনও বেশ ব্যয়বহুল, সে কারণে স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও অর্থনৈতিক কার্যক্রমে মানুষের প্রবেশকে বাধাগ্রস্ত করছে।

গঠিত হবার পর  এই জোটের প্রথম সভাতে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও অর্থনৈতিক খাতে বাংলাদেশের প্রযুক্তিগত উদ্যোগগুলো তুলে ধরেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলক। ডিজিটাল প্লাটফর্মে আয়োজিত উক্ত অনুষ্ঠানে তিনি ডিজিটাল এ্যাক্সেস নিশ্চিত করা, শহর ও গ্রামাঞ্চলের বৈষম্যগুলো কমিয়ে আনার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের পদক্ষেপগুলোও তুলে ধরেন , যা অনায়াসেই পৃথিবীর অন্য অনেক দেশের জন্য রোল মডেল হতে পারে।

উল্লেখ্য, ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফোরাম ২০১৬ সালে জুনাইদ আহমেদ পলককে ইয়ং গ্লোবাল লিডার হিসেবে মনোনিত করেছিল। ঐ বছর সমগ্র দক্ষিণ এশিয়ার মধ্য থেকে জুনাইদ আহমেদ পলক এই মনোনয়ন পেয়েছিলেন।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের চ্যাম্পিয়ান লিডার্সগণ এ এডিসন এলাইন্স এর সদস্য।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে