আসন্ন সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে দেবিদ্বার উপজেলা চেয়ারম্যানের পদত্যাগ

সোমবার, নভেম্বর ২০, ২০২৩,৫:৪৪ অপরাহ্ণ
0
31

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

দেবিদ্বার (কুমিল্লা) প্রতিনিধি : দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদ থেকে অব্যাহতি চেয়ে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবুল কালাম আজাদ । সোমবার বিকালে তিনি কুমিল্লা জেলা প্রশাসক খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমানের কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেন। আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লা -৪ (দেবিদ্বার) আসন থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ার প্রত্যাশায় তিনি এ পদত্যাগপত্র জমা দেন। সোমবার বিকালে তিনি নিজেই এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে গত রবিবার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন।

পদত্যাগ করার কারণ জানতে চাইলে মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, উপজেলা পরিষদের মোট বাজেট আর এমপিদের বার্ষিক টিআর- কাবিখার বাজেট প্রায় সমান। এই স্বল্প বাজেটে সততার সাথে দায়িত্ব পালন করেছি। দক্ষ নেতৃত্বের অভাবে বিগত ১০ বছরে দেবিদ্বারবাসী তাদের কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত। বেশিরভাগ রাস্তাঘাট নিয়ে জনগন অসন্তুষ্ট। দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ জনগনের চাপে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার জন্য পদত্যাগ করেছি। আশাকরি দল মনোনয়ন দিলে বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়ে দেবিদ্বারের কাঙ্খিত উন্নয়ন করতে পারব।

জানা গেছে, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আবুল কালাম আজাদ গত প্রায় তিন বছর দায়িত্ব পালনকালে দেবিদ্বার উপজেলায় সিএনজি স্টেশনসমূহ (পৌরসভা ব্যতীত) ইজারামুক্ত করায় জিবি নামক চাঁদাবাজি বন্ধ করেন ও সকল অন্যায় অনিয়ম ও অপকর্মের বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকায় জনমনে প্রশংসিত হয়েছেন, এছাড়াও উন্নয়ন বরাদ্দে কোনো ধরনের অনিয়ম না করায় তিনি ব্যাপক জনপ্রিয়তা কুড়িয়েছেন।

২০২১ সালে ২৮ ফেব্রুয়ারি দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনে বিএনপি’র প্রার্থী এএফএম তারেক মুন্সির ধানের শীষ প্রতীকের বিরুদ্ধে ৯৫ হাজার ৫৬৪ ভোট পেয়ে আবুল কালাম আজাদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। পরে ২৩ মার্চ শপথ গ্রহনের মাধ্যমে তিনি চেয়ারম্যান দায়িত্ব গ্রহন করে আজঅবধি সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেন।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে