‘অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস অব্যাহত রাখতে হবে’

রবিবার, নভেম্বর ২৯, ২০২০,১১:১০ অপরাহ্ণ
0
9

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

ভারতীয় কমিউনিস্ট পার্টি প্রতিষ্ঠার শতবর্ষ পূর্তি উপলক্ষে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির উদ্যোগে আজ ২৯ নভেম্বর ২০২০ রবিবার সকাল ১০:৩০ মিনিট থেকে ১২:৪০ মিঃ পর্যন্ত ‘‘100 years of Communist Movement in India: The struggle against Imperialism and Communism for Secular Democratic South Asia” শীর্ষক আন্তর্জাতিক ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত হয়।

পার্টির সভাপতি কমরেড রাশেদ খান মেননের সভাপতিত্বে ওয়েবিনার পরিচালনা করেন, পলিটব্যুরোর অন্যতম নেতা কমরেড ড. সুশান্ত দাস। ওয়েবিনারে মূলপত্র উত্থাপন করেন পার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড ফজলে হোসেন বাদশা।

ওয়েবিনারে আলোচক হিসেবে অংশ নেন ভারতীয় কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিআইএম) এর সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক কমরেড সীতারাম ইয়েচুরি, নেপাল কমিউনিস্ট পার্টির সিনিয়র কেন্দ্রীয় নেতা, সাবেক প্রধানমন্ত্রী কমরেড মাধব কুমার নেপাল, পাকিস্তান কমিউনিস্ট পাটির আন্তর্জাতিক সম্পাদক কমরেড ডঃ আয়াজ মোহাম্মদ, সর্ব ভারতীয় ফরওয়ার্ড ব্লকের আন্তর্জাতিক কমিটির ইনচার্জ কমরেড জি দেবরাজন।

মূলপত্রে কমরেড ফজলে হোসেন বাদশা বাংলাদেশে বামপন্থীদের বিভিন্ন আন্দোলনের ইতিহাস তুলে ধরেন। বিশেষ করে তেভাগা আন্দোলন, টংকা আন্দোলন, নানকার আন্দোলন, উল্লাপাড়া আন্দোলন, ত্রিপুরা ট্রাইবল আন্দোলনসহ আরো বহু আন্দোলন। শ্রমিক শ্রেনী বৃট্টিশ শাসন বিরোধী আন্দোলনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।

কমরেড সীতারাম ইয়েচুরি তাঁর বক্তবে বলেন, কমিউনিস্ট পার্টির প্রতিষ্ঠার পর শতবর্ষ ধরে দক্ষিণ এশিয়ার দেশসমূহের কমিউনিস্টরা গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। তিনি বলেন, ১৯২০ সালে ভারত উপমহাদেশে কমিউনিস্ট পার্টি প্রতিষ্ঠা হলেও তা পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশ, পাকিস্তান, নেপাল, শ্রীলংকাসহ দক্ষিণ এশিয়ায় বিস্তার লাভ করে। ভারতীয় শাসক গোষ্ঠী বর্তমানে মার্কিন নীতি অনুসরণ করছে। তিনি বলেন, করোনা মহামারিতে চীন, ভিয়েতনাম তাদের সক্ষমতা দেখিয়েছেন শুধুমাত্র সমাজতান্ত্রিক ব্যবস্থায় কারণে।

কমরেড মাধব কুমার নেপাল তার বক্তৃতায় বলেন, শতবর্ষে দক্ষিণ এশিয়ায় কমিউনিস্ট আন্দোলন ঐতিহাসিক, দ্বান্দিক ও বস্তুবাদী ধারায় পার করেছে। ভারতীয় কমিউনিস্ট পার্টি প্রতিষ্ঠা নেপাল সহ দক্ষিণ এশিয়ার প্রভাব ফেলেছিলো। নেপাল কমিউনিস্ট পার্টির প্রতিষ্ঠা লাভ করে ১৯৪৯ সালে।

কমরেড ডঃ আয়াজ মোহাম্মদ বলেন, ১৯৪৮ সালে পাকিস্তান কমিউনিস্ট পার্টি প্রতিষ্ঠা হয়, ড. সাজ্জাদ জহির সেই সময় পার্টির নেতৃত্ব দেনে এবং গোপনে তিনি শ্রমিক ও কৃষকের মধ্যে পার্টি গড়ে তোলার চেষ্টা করেন। পাখতুন খোয়া ও উত্তর-পশ্চিম সীমান্ত প্রদেশে পার্টির ভিত্তি তৈরি হয়।

দেবরাজন তাঁর বক্তৃতায় বলেন, ভারতে ১৩টি ট্রেড ইউনিয়নের মধ্যে ১১টিই বামপন্থীরা নেতৃত্ব দিচ্ছে। এখনো শ্রমিক ও কৃষকদের বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তুললেও আমরা তা ভোটের বাক্সে প্রতিফলন কাটাতে ব্যর্থ হচ্ছি।

ওয়েবিনারে সকল বক্তায় সা¤্রাজ্যবাদ ও ধর্মীয় সাম্প্রদায়িক শক্তির বিরুদ্ধে অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক সমাজ প্রতিষ্ঠার জন্য ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে