অফিস, গণপরিবহন খুলে দেয়ায় মহিলা পরিষদের উদ্বেগ ও শংকা

শুক্রবার, মে ২৯, ২০২০,৩:৫৪ অপরাহ্ণ
0
12

[ + ফন্ট সাইজ বড় করুন ] /[ - ফন্ট সাইজ ছোট করুন ]

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ এক বিবৃতিতে সরকারের অফিস, গণপরিবহন খুলে দেয়ার বিষয়ে ২৮ মে ২০২০ জারি করা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপণে গভীর উদ্বেগ ও তীব্র শংকা প্রকাশ করে ও এই বিষয়টি পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানিয়েছে।

বিবৃতিতে তারা বলেন, আমরা গভীর বিস্ময়ের সাথে লক্ষ্য করলাম যে যখন দেশে প্রতিদিন করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে, মৃত্যুর মিছিল দীর্ঘতর হচ্ছে, সেই সময় গত ২৮ মে ২০২০ সরকারের পক্ষ থেকে আগামী ৩১ মে ২০২০ থেকে  সরকারি, বেসরকারি, স্বায়ত্বসাশিত প্রতিষ্ঠানসহ সীমিত আকারে গণপরিবহন খুলে দেয়ার ঘোষণা দেয়া হলো। সরকারের এই ঘোষণায় বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ গভীর উদ্বেগ ও তীব্র শংকা প্রকাশ করছে।

সরকারের করোনা বিষয়ক টেকনিকাল কমিটি এবং অন্যান্য স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞগণ এবং বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, বর্তমান সময়ে করোনা সংক্রমনের উর্ধগতি প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাই এখন পর্যন্ত একমাত্র উপায়। এরকম পরিস্থিতিতে সরকারের জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অফিস ও গণপরিবহন খোলার প্রজ্ঞাপন জারি করা হল, যাতে  জনজীবন আরও অধিক  ঝুঁকিপুর্ণ হয়ে উঠল।

বিবৃতিতে তারা আরো বলেন, সরকারের একদিকে শর্ত সাপেক্ষে বাজার খোলা রাখার সিদ্ধান্ত, অপরদিকে জনগণের চলাচলের উপর নিষেধাজ্ঞা সিদ্ধান্তের সমন্বয় হীনতার প্রতিফলন বলে মনে হয়। এই পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এই প্রজ্ঞাপন পুনর্বিবেচনা করে সাধারণ ছুটির সময়সীমা বৃদ্ধি ও  দেশব্যাপী  কঠোরভাবে লকডাউন ঘোষণা ও কার্যকর করার  জোর দাবি জানাচ্ছে। এ ছাড়া কোভিড-১৯ চিকিৎসার নতুন কেন্দ্রসমূহ সরকারের ব্যবস্থাপনায় পরিচালনা নিশ্চিত করার দাবি জানাচ্ছে।

একই সাথে এই সময়ে সরকারকে জীবনধারণের জন্য সকল খেটে খাওয়া মানুষকে চলমান সহায়তা অব্যাহত রাখার দাবি জানাছে।

বিঃদ্রঃ মানব সংবাদ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে